বাংলাদেশি চলচ্চিত্র অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ। ফাইল ছবি

ফেরদৌসের ভিসা বাতিলের কোনো যুক্তি নেই: মমতা

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১১ জুন ২০১৯, ১৭:২১
আপডেট: ১১ জুন ২০১৯, ১৭:২১

(প্রিয়.কম) ভারতের লোকসভা নির্বাচনের সময় একটি দলের প্রার্থীর নির্বাচনি প্রচারে অংশ নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মধ্যে পড়েছিলেন বাংলাদেশি চলচ্চিত্র অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদ। ওই সময় ভারতের ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক দল বিজেপি দাবি করেছিল, ‘বাংলাদেশের অভিনেতা পর্যটক ভিসা নিয়ে এসে এভাবে ভোটের প্রচার করতে পারেন না। এতে যেমন নির্বাচনি বিধি ভঙ্গ হয়েছে, তেমনি ভিসার শর্তও লঙ্ঘন হয়েছে। একই সঙ্গে বাংলাদেশি এই অভিনেতাকে ভারতীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ‘কালো তালিকাভুক্ত’ করে এবং ভারত ছাড়ার নির্দেশ দেয়।

দেখতে দেখতে এ ঘটনার প্রায় দুই মাস পর অবশেষে মুখ খুললেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিনেতার নাম প্রকাশ না করে তিনি বলেন, ‘ভোটের সময় বাংলাদেশ থেকে আমাদের একজন বন্ধু এসেছিলেন এবং তৃণমূলের মিছিল দেখে তিনি রাস্তায় দাঁড়িয়ে পড়েছিলেন। ব্যস, অমনি তার ভিসা বাতিল করে দেওয়া হলো। এটা কেমন কথা? তার ভিসা বাতিলের কোনো যুক্তি নেই।’

১০ জুন, সোমবার কলকাতায় সংবাদ সম্মেলনে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। রাজ্যের প্রশাসনিক ভবন নবান্নে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বাংলাদেশি অভিনেতা ফেরদৌস আহমেদের নাম না নিলেও ভিসা বাতিল করার প্রসঙ্গ থেকে এটা স্পষ্ট যে তিনি ফেরদৌসের কথাই বুঝিয়েছেন।

ভারত সফরে গিয়ে গত ১৪ ও ১৫ এপ্রিল রায়গঞ্জের তৃণমূল প্রার্থী কানহাইয়ালাল আগরওয়ালের হয়ে স্থানীয় চলচ্চিত্র শিল্পীদের সঙ্গে ভোটের প্রচারে গিয়েছিলেন ফেরদৌস। ওই মিছিলের ছবি ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। ওই মিছিলে টালিগঞ্জের দুই তারকা অঙ্কুশ ও পায়েলকেও তৃণমূল প্রার্থীর হয়ে ভোট চাইতে দেখা গেছে। এ ঘটনার পর ফেরদৌস দেশে ফিরে দুঃখ প্রকাশ করে বিবৃতিও দিয়েছিলেন। 

প্রিয় সংবাদ/আজাদ চৌধুরী