আজ কমলগঞ্জ ও কাল কুলাউড়া আওয়ামী লীগের সম্মেলন

মানবজমিন প্রকাশিত: ২০১৯-১১-০৯ ০০:০০:০০

দীর্ঘদিন পর জেলার দু’টি উপজেলায় সম্মেলন ও কাউন্সিল হচ্ছে । তাই নতুন নেতৃত্বের প্রত্যাশায় নেতাকর্মীরা। দীর্ঘ ১৫ বছর পর হতে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী কুলাউড়া ও কমলগঞ্জ উপজেলার আওয়ামী লীগের সম্মেলন। আজ কাউন্সিল ও সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে কমলগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের। অপরদিকে কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে কাল ১০ই নভেম্বর । সম্মেলন ও কাউন্সিলকে সামনে রেখে গেল ক’দিন থেকে পদ পদবির প্রত্যাশায় তৎপর ছিলেন নেতারা । হঠাৎ নেতাদের এমন তৎপরতা আর কদর বাড়ায় সম্মেলন ও কাউন্সিল নিয়ে উজ্জীবিত দলের নিবেদিত প্রাণ কর্মীরা। সম্মেলনকে ঘিরে সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে। এই দুই উপজেলায় সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে। উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে ।  কুলাউড়া: জেলার মধ্যে রাজনৈতিক সচেতন উপজেলা হিসেবে খ্যাত কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগে দলীয় অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব প্রকট । এই এ কারণেই বিগত ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলা ও সংসদ নির্বাচনেও সুফল পায়নি আওয়ামী লীগ। দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে এই আসনটি হাতছাড়া হয় আওয়ামী লীগের। আর ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে দেশের মধ্যে সর্বনিম্ন (প্রায় সাড়ে বারোশ) ভোট পাওয়ার রেকর্ড গড়েন আওয়ামী লীগের প্রার্থী এ্যাডভোকেট আতাউর রহমান শামীম। অথচ এই উপজেলা ভোটযুদ্ধে জেলার মধ্যে আওয়ামী লীগের অন্যতম দূর্গ হিসেবেই পরিচিত। এই রেকর্ডের  নেপথ্যের কারণ ছিল অভ্যন্তরীণ দ্বন্দ্ব। আর ব্যাপক প্রভাব পড়ছে সাংগঠনিক কাজে। দীর্ঘদিন থেকে একক নেতৃত্বের প্রভাব ক্ষোভে নিষ্ক্রিয় হচ্ছেন সক্রিয় নেতাকর্মীরা। তাই আগের চেয়ে এখন অনেকটাই ঝিমিয়ে পড়েছে সাংগঠনিক কার্যক্রম এমনটি বলছেন দলের নেতাকর্মী ও স্থানীয় রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তবে চলমান এই দ্বন্ধন্দ্ব নিরসনে আসন্ন এই সম্মেলনই মুখ্য ভূমিকা রাখবে এমনটিই প্রত্যাশা তৃণমূলের কর্মীদের । দীর্ঘ ১৫ বছর পর কাল ১০ই নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ও কাউন্সিল। সম্মেলনকে ঘিরে সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যেই সম্পন্ন হয়েছে । নেতাকর্মীদের  মাঝে বইছে উৎসবের আমেজ। জানা যায়, গত ২৪শে অক্টোবর পৌরসভা হলরুমে বর্ধিত সভায় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটি গঠনের মধ্যদিয়ে দীর্ঘদিন থেকে ঝিমিয়ে পড়া সাংগঠনিক কার্যক্রম অনেকটাই চাঙ্গা হয়ে উঠে । ২০০৪ সালে ৭১ সদস্য বিশিষ্ট কুলাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হয়। ওই কমিটির অনেক দায়িত্বশীল পদের লোকজন মারা গেছেন। আবার অনেকেই বউ বাচ্চা নিয়ে প্রবাসে গেড়েছেন স্থায়ী নিবাস। যার কারণে বিগত কমিটির অধিকাংশ নেতাদের অংশগ্রহন নেই। তাই সময় উপযোগী এই সম্মেলনের তারিখ ঘোষণার পরপরই ডজন খানেক পদ পদবী প্রত্যাশী শীর্ষনেতাদের আশীর্বাদ পেতে এখনো জোর লবিং চালাচ্ছেন।  আসন্ন সম্মেলন ও কাউন্সিলে পদ পদবীর জন্য যাদের নাম শোনা যাচ্ছে তারা হলেন- বর্তমান সভাপতি ও সাবেক (স্বতন্ত্র) এমপি আব্দুল মতিন, সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম রেনু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও কুলাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ এ কে এম সফি আহমদ সলমান, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমেরিকা প্রবাসী আব্দুল মুক্তাদির তোফায়েল, বর্তমান সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক ফজলু, সাবেক কুলাউড়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের যুব বিষয়ক সম্পাদক আ স ম কামরুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক অধ্যাপক সিএম জয়নাল আবেদীন, উপজেলা শ্রমিক লীগের যুগ্ম আহবায়ক অধ্যক্ষ সিপার উদ্দিন আহমদ, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি বদরুল ইসলাম বদর ও কৃষকলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শফিউল আলম শফিসহ অনেকেই।

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

আরও