এবারের মৌসুমে রজার ফেদেরারকে হারিয়ে উইম্বলডন জিতেছেন জোকোভিচ। ছবি: সংগৃহীত

বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের প্রাপ্ত সমপরিমাণ অর্থ একাই পেয়েছেন জোকোভিচ

মুশাহিদ
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৯ জুলাই ২০১৯, ১৮:০৫
আপডেট: ১৯ জুলাই ২০১৯, ১৮:০৫

(প্রিয়.কম) বরাবরের মতো বিশ্বকাপের এবারের আসরেও ছিল অর্থের ঝনঝনানি। তবে অন্যান্য আসরের চেয়ে এবারের আসরের অর্থের পরিমাণ ছিল অনেকটাই বেশি। ইংল্যান্ড ও ওয়েলসের অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপের দ্বাদশ আসরে অংশগ্রহণকারী দলগুলোর জন্য ১০ মিলিয়ন ডলার প্রাইজমানি বরাদ্ধ রেখেছিল ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ প্রায় ৮৪ কোটি টাকা।

প্রাইজমানির এই অর্থ বিশ্বকাপজয়ী দল, রানার্সআপ, সেমিফাইনালে হেরে যাওয়া অপর দুই দল ছাড়াও অন্যান্য দলগুলোর মধ্যে ভাগ করে দিয়েছে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিল (আইসিসি)। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি ৪০ লাখ ডলার বা প্রায় ৩৪ কোটি টাকা পেয়েছে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড।

রানার্সআপ দলটি পেয়েছে ঠিক তার অর্ধেক। অর্থাৎ দুই মিলিয়ন ডলার বা ১৭ কোটি টাকা পেয়েছে নিউজিল্যান্ড। এখানেই শেষ নয়। সেমিফাইনাল থেকে বিদায় নেওয়া দুই দল পেয়েছে আট লাখ মার্কিন ডলার করে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ সাড়ে ছয় কোটি টাকা। অর্থাৎ ১৩ কোটি টাকা পেয়েছে সেমিফাইনাল থেকে বাদ পড়া ভারত ও অস্ট্রেলিয়া।

বিস্ময়ের আরও বাকি আছে অবশ্য। উইম্বলডন জিতে ইংল্যান্ডের প্রাইজমানির সমপরিমাণ অর্থ একাই পেয়েছেন নোভাক জোকোভিচ। গেল ১৪ জুলাই রজার ফেদেরারকে হারিয়ে উইম্বলডন শিরোপা জিতেছেন সার্বিয়ার এই টেনিস তারকা।

এবার আইসিসির চেয়েও পাঁচগুণ বেশি প্রাইজমানি বরাদ্ধ রেখেছিল উইম্বলডন। এবারের মৌসুমে উইম্বলডনের প্রাইজমানি ছিল ৪৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মধ্য থেকে পুরুষ ও নারী এককে শিরোপাজয়ী নোভাক জোকোভিচ ও সিমোনা হালেপ প্রত্যেকে পেয়েছেন ৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।

প্রিয় খেলা/কামরুল

আরো পড়ুন