কুইক লিঙ্ক : মুজিব বর্ষ | করোনা ম্যাপ | করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব

আইয়ুব বাচ্চু। ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের বিজ্ঞাপনে অনুমতি ছাড়া বাচ্চুর ‘সেই তুমি’

মিঠু হালদার
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১৬ মে ২০১৮, ১৪:৪১
আপডেট: ১৬ মে ২০১৮, ১৪:৪১

(প্রিয়.কম) জনপ্রিয় ব্যান্ডশিল্পী আইয়ুব বাচ্চুর রয়েছে ভিন্ন ভিন্ন পরিচয়-লিড গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, প্লেব্যাক শিল্পী। তার বহু জনপ্রিয় গানগুলোর মধ্যে একটি হলো ‘সেই তুমি’। ‘ক্রসস্টিচ’ নামের একটি পাকিস্তানি পোশাক প্রতিষ্ঠান গানটির বাঁশির সংস্করণকে হুবহু নকল করে তাদের পোশাকের বিজ্ঞাপনে আবহ সংগীত হিসেবে ব্যবহার করেছে।

৫৬ সেকেন্ডের এ প্রমোশনাল ভিডিওটি ফেসবুকে ‘বিজম্যাক্স টিভি’ নামের একটি পেজ থেকে ‘ইয়ে হ্যায় পাঞ্জাব, মেরা পাঞ্জাবি’ শিরোনাম দিয়ে এখন থেকে ২১ ঘণ্টা আগে পোস্ট করা হয়েছে।  

যখন অনেকেই জানতে পারেন আইয়ুব বাচ্চুর অনুমতি না নিয়েই পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠানটি বিজ্ঞাপনে গানটি ব্যবহার করেছে, তখন থেকেই সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে বিষয়টি নিয়ে চলছে তুমুল সমালোচনা। তারপর থেকেই অনেকেই আইয়ুব বাচ্চুকে অনুরোধ করে বলেছেন, এ বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করতে।

এদিকে ‘সেই তুমি’ গানটির বাঁশির একটি ভার্সন ইউটিউবে আপলোড করা হয় ২০১৬ সালের ৫ জুলাই। আর সে বাঁশি বাজিয়েছিলেন রাকিবুল ইসলাম রনি। সেটিই ব্যবহার করেছে পাকিস্তানি প্রতিষ্ঠানটি।

যে পেজ থেকে বিজ্ঞাপনটি প্রকাশ হয়েছে, তাদের কাছে বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য জানতে চেয়ে কিছু প্রশ্ন পাঠিয়ে অনেকক্ষণ অপেক্ষার পরও তারা কোনো ধরনের উত্তর দেননি, কিংবা ফিরতি কোনো ম্যাসেজও দেননি।  

এ বিষয়ে আইয়ুব বাচ্চু প্রিয়.কমকে বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে আমার গর্ব হচ্ছে। কারণ বাংলাদেশের মিউজিক তাদের ব্যবহার করতে হয়েছে। হয়তো তাদের দেশে এখন আর এ রকম মিউজিক হয় না। আমি একজন বাংলাদেশি, প্রতিটা বাঙালির ঠোঁটে এই গানটি রয়েছে। এপার বাংলা কিংবা ওপার বাংলা, যেখানেই বলি না কেন।

তবে তারা তাদের বিজ্ঞাপনে গানটি ব্যবহার করার আগে একবার ভাবার দরকার ছিল। ক্রেডিট দিলে ভালো লাগত। লোকালি যদি খেয়াল করে দেখবে, রিয়েলিটি শোগুলোতে যখন গান গাই, তখন কি ক্রেডিট লাইনে ঠিকঠাকভাবে নাম ব্যবহার করা হয়?

কোনো শিল্পী কি তার প্রাপ্যটা পায়? এগুলোর জন্য যদি সুষ্ঠু নীতিমালা আমাদের দেশেই থাকত, তাহলে কেউ এ ধরনের কাজ করতে সাহস পেত না। অনেকেই যার গান তার অনুমতি না নিয়ে হয়তো ইনস্ট্রুমেন্টাল কিংবা হুবুহু গানটি গেয়ে তার ইউটিউব চ্যানেল থেকে আপ করে দিচ্ছেন, কিন্তু শিল্পী তার প্রাপ্যটা পাচ্ছেন না।

তবে যদি সে শিল্পী আইনের আশ্রয় নেয়, তাহলে তো যারা এ কাজ করছে তারা বিপদে পরে যাবে।’  

সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর বলেন, ‘বিষয়টি অন্যায়। শিল্পী এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিলে আমরা কূটনৈতিকভাবে তাকে সহায়তা করব।’

‘সেই তুমি’ গানের মূল ভার্সন দেখতে ক্লিক করুন নিচের লিংকে।

রাকিবুল ইসলাম রনির গাওয়া ‘সেই তুমি’ গানের বাঁশির ভার্সন।

‘ক্রসস্টিচ’ নামে পাকিস্তানি পোশাক প্রতিষ্ঠানের এই বিজ্ঞাপনেই গানটি ব্যবহৃত হয়েছে

প্রিয় বিনোদন/গোরা