প্রতীকী ছবি

‘ব্যর্থ’ রেলসেবা অ্যাপের গুণগান গাইল আইসিটি বিভাগ

রাকিবুল হাসান
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ১০ জুন ২০১৯, ১৭:২৮
আপডেট: ১০ জুন ২০১৯, ১৭:২৮

(প্রিয়.কম) ঈদের টিকেট ছাড়ার পর থেকেই সংবাদের শিরোনাম হয়েছে রেলওয়ে মন্ত্রণালয়ের রেলসেবা অ্যাপটি।

সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে অ্যাপটির বিরুদ্ধে ভোগান্তিবিষয়ক অভিযোগ ছিল অগুনতি। টিকেট না পেলেও টিকেটের অর্থ কেটে নেওয়া, অ্যাপটিতে প্রবেশে ব্যর্থ হওয়াসহ সার্ভারজনিত সমস্যায় বেশি ভুগতে হয়েছে অ্যাপ ব্যবহারকারীদের।

এবার এই অ্যাপের গুণগান গেয়ে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়েছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ।

১০ জুন, সোমবার আইসিটি বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তা শহিদুল আলম মজুমদার স্বাক্ষরিত ওই বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়, অ্যাপটির কারণে রেলের টিকিটিং সেবা হাতের মুঠোয় এসে পৌঁছেছে এবং জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে অ্যাপটি।

বিজ্ঞপ্তিতে অ্যাপ ব্যবহারকারীদের ভোগান্তির বিষয়ে কোনো তথ্য তুলে ধরেনি আইসিটি বিভাগ। একই সঙ্গে পরবর্তীতে এই ভোগান্তি নিরসনে কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে তা স্পষ্ট করা হয়নি।

বিজ্ঞপ্তিতে দাবি করা হয়, ‘অ্যাপটির কারণে ট্রেনযাত্রীদের সময় লাঘব হয়েছে, কষ্ট কমেছে। ইন্টারনেট ও অ্যাপ ব্যবহার করে যাত্রী সাধারণ নিজের স্মার্টফোনে টিকিট কাটার ফলে কাউন্টারে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ ভিড় কমেছে। কাউন্টারে লাইনে দাঁড়িয়ে গড়ে যাত্রীপ্রতি ৩ শ্রমঘণ্টা ব্যয় হলে এ ক্ষেত্রে অ্যাপ ব্যবহারে অন্তত পাঁচ লাখ শ্রমঘণ্টা সাশ্রয় করা গিয়েছে। স্টেশনে যাওয়ার বিড়ম্বনা এড়িয়ে যাওয়ায় রাস্তায় জ্যামসহ পরিবহনের খরচ ও জ্বালানি তেল সাশ্রয় হয়েছে। এ ছাড়া সরাসরি ই-টিকিট ব্যবহার করে ভ্রমণের সুযোগ থাকায় বাংলাদেশ রেলওয়ের প্রচলিত টিকিট প্রিন্ট করার ঝামেলা না থাকায় যাত্রীরা স্বাচ্ছন্দ্যে ট্রেনে উঠতে পেরেছেন।’

এতে আরও বলা হয়, ‘এ পর্যন্ত প্রায় দুই লাখ ৩১ হাজার অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারী ও ১০ হাজার ৫১৭ জন আইওএস ব্যবহারকারী টিকিট ক্রয়ের জন্য অ্যাপসটি ডাউনলোড করেছেন। আর এবার ঈদে অ্যাপের মাধ্যমে বিক্রি হয়েছে এক লাখ ৬৬ হাজার ৬৮৭টি টিকেট।’

বাংলাদেশ রেলওয়ের এক সূত্রের বরাত দিয়ে বিজ্ঞপ্তিতে আরও দাবি করা হয়, ‘ঈদ-উল-ফিতরের টিকিটিং চলাকালীন সময়ে অ্যাপের তথ্য উপাত্ত নিয়ে দেখা যায়, প্রথম ঘণ্টায় পাঁচ হাজার জনের বেশি যাত্রী অ্যাপের মাধ্যমে টিকিট ক্রয় করেছেন। ইতোমধ্যেই অ্যাপটির আপগ্রেডের ক্ষেত্রসমূহ চিহ্নিত করা হয়েছে ও পরবর্তী সংস্করণে ঘণ্টায় ১৫ হাজারের বেশি যাত্রী টিকিট ক্রয় করতে পারবেন।’

অ্যাপটির ব্যবহারকারীদের ভোগান্তির বিষয়টি আমলে নিয়ে অনলাইনে রেলের টিকেট কেনায় আইসিটি বিভাগের পরবর্তী পদক্ষেপ সম্পর্কে জানতে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করে প্রিয়.কম। তিনি বৈঠকে থাকায় তার সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি।

একই সঙ্গে আইসিটি বিভাগের জনসংযোগ কর্মকর্তা এ বিষয়ে তাৎক্ষণিক মন্তব্য করতে রাজি হননি।

উল্লেখ্য, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সহযোগিতায় বাংলাদেশ রেলপথ মন্ত্রণালয় রেলওয়ের ওয়ান স্টপ টিকিটিং সার্ভিস ‘রেলসেবা’ অ্যাপটি চালু করে। অ্যাপটি যৌথভাবে উদ্বোধন করেন রেলমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন ও প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।

প্রিয় প্রযুক্তি/আজাদ চৌধুরী

আরো পড়ুন