দুই কিংবদন্তির সঙ্গে অভিনয়ে পার্থপ্রতিম

মানবজমিন প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-২৫ ০০:০০:০০

আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন বাংলাদেশের মূকাভিনেতা পার্থপ্রতিম মজুমদার আবারো অভিনয়ে পা রাখলেন। ভারতের একটি চলচ্চিত্রে তিনি অভিনয় করেছেন দুই কিংবদন্তি অভিনেতার সঙ্গে। এরা হলেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও নাসিরউদ্দিন শাহ। এদের সঙ্গে অভিনয় করতে পেরে পার্থপ্রতিম খুবই গর্বিত। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এই অভিনয়ের কথা আমি আজীবন মনে রাখবো। তিনি আরো বলেন, এটা আমার সৌভাগ্য যে ভারতের দুই কিংবদন্তি অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় আর নাসির উদ্দিন শাহর সঙ্গে অভিনয় করতে পেরেছি। সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় তো আমাদের কাছে এক স্বপ্নের মানুষ। আর নাসিরউদ্দিন শাহ হলেন মুম্বইয়ের ক্ল্যাসিক ছবির অন্যতম ব্যক্তিত্ব। পার্থপ্রতিম যে চলচ্চিত্রে অভিনয় করতে প্রচণ্ড গরমেও সুদূর প্যারিস থেকে কলকাতায় ছুটে এসেছিলেন সেটির নাম ‘দেবতার গ্রাস’। এটি পরিচালনা করছেন কলকাতার বিশিষ্ট পরিচালক শৈবাল মিত্র। এর আগে তিনি ‘শজারুর কাঁটা’, ‘সংশয়’ এবং ‘চিত্রকর’ নামের ছবিগুলো পরিচালনা করেছেন। এবার তিনি আমেরিকান নাটক ‘ইনহেরিট দ্য উইন্ড’ অবলম্বনে তৈরি করছেন ‘দেবতার গ্রাস’। সামপ্রদায়িকতা, অসহিষ্ণুতা এবং ধর্মীয় গোঁড়ামির বিরুদ্ধে প্রতিবাদকে ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে ছবির কাহিনী। পার্থপ্রতিম মজুমদার এই চলচ্চিত্রে একজন খ্রিষ্টান ধর্মযাজকের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন। পার্থপ্রতিমের জন্ম ও বেড়ে ওঠা বাংলাদেশেই। তবে এখন তিনি প্যারিস প্রবাসী। তার মূকাভিনয় গোটা বিশ্বে সমাদৃত হয়েছে। ফ্রান্সের সাংস্কৃতিক অঙ্গনের সেরা সম্মান নাইট উপাধিও পেয়েছেন তিনি। মূকাভিনয়ের পাশাপাশি তিনি মঞ্চে অভিনয় করেছেন। চলচ্চিত্রেও পা রেখেছেন। গত মাসের শেষ সপ্তাহে কলকাতার নানা জায়গায় শুটিং শেষে পার্থপ্রতিম ফিরে গিয়েছেন প্যারিসে। জানা গেছে, ‘দেবতার গ্রাস’ চলচ্চিত্রটি বাংলা, হিন্দি আর ইংরেজি ভাষায় তৈরি হচ্ছে। এই চলচ্চিত্রের পটভূমি পশ্চিমবঙ্গের খ্রিষ্টান অধ্যুষিত হিল্লোলগঞ্জ শহরের একটি ঘটনাকে ঘিরে। সেখানেই রয়েছে একটি চার্চ। এই চার্চের প্রধান বা ধর্মযাজক হলেন প্যাস্টর হেরম্বচন্দ্র মাল। এই হেরম্বের চরিত্রে অভিনয় করেছেন পার্থপ্রতিম । অন্যদিকে দুই আইনজীবীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় ও নাসিরউদ্দিন শাহ। পরিচালক শৈবাল মিত্র জানিয়েছেন, ভারতের পশ্চিমবঙ্গে চলচ্চিত্রটি মুক্তির পর বাংলাদেশেও প্রদর্শনের উদ্যোগ নেয়া হবে।

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন