কেন রিজার্ভ ডে নেই, জানালো আইসিসি

মানবজমিন প্রকাশিত: ২০১৯-০৬-১৩ ০০:০০:০০

বিশ্বকাপের দুই সপ্তাহ না যেতেই ৩ ম্যাচ পরিত্যক্ত হলো। ওয়েস্ট ইন্ডিজ-দক্ষিণ আফ্রিকার ম্যাচে পর টানা দুই ম্যাচ বৃষ্টির গর্ভে। ইংল্যান্ডের আবহাওয়ার কথা মাথায় রেখে গ্রুপ পর্বের খেলায়ও রিজার্ভ ডে রাখা না রাখা নিয়ে প্রশ্ন তুলছে অনেকেই। তবে এই সমালোচনাকে পাশে রেখে আইসিসি জানালেন, প্রতিম্যাচে রিজার্ভ ডে রাখা সম্ভব নয়। রিজার্ভ ডে নিয়ে আইসিসি প্রধান নির্বাহী ডেভিড রিচার্ডসন বলেন, ‘ প্রতিটি ম্যাচে রিজার্ভ ডে রাখলে টুর্নামেন্ট বেশ লম্বা হয়ে যেত। বাস্তবে তা জটিল রূপ ধারণ করতো। বিশ্বকাপের মতো বড় আসরে প্রতিম্যাচে রিজার্ভ ডে রাখা সম্ভব নয়।’ইংল্যান্ডের আবহাওয়া নিয়ে ডেভিড রিচার্ডসন বলেন, ‘এসময় বৃটেনের আবহাওয়া একদমই এই রকম থাকে না। গত দুই দিনে যে পরিমাণ বৃষ্টি হয়েছে, পুরো মাসেও এতো বৃষ্টি হয় না। যুক্তরাজ্যে সবচেয়ে শুষ্কতম মাস ধরা হয় জুন মাসকে। গত বছর জুন মাসে মাত্র ২ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছিল। কিন্তু গত ২৪ ঘন্টায় ইংল্যান্ডের উত্তর ও দক্ষিণ অঞ্চলে ১০০ মিলি মিটার বৃষ্টি হয়েছে।’বিশ্বকাপের মতো আসরে রির্জাভ ডে নিয়ে জটিলতা নিয়েও ডেভ রিচার্ডসন বলেন, ‘বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে রিজার্ভ ডে কোনও কাজে দেয় না। রিজার্ভ ডে পিচ প্রস্তুতিতে প্রভাব ফেলে। ভেন্যুর খেলার যোগ্যতা নিয়ে প্রশ্নও থাকে। ক্রিকেটারদের ভ্রমণক্লান্তি, থাকার ব্যবস্থা, আর ভেন্যু পাওয়া নিয়েও জটিলতার সৃষ্টি হয়। সবচেয়ে বড় কথা রিজার্ভ ডে’তে সমর্থকরা আবার সেই ম্যাচ দেখতে আসবেন কিনা, তা নিয়ে একটা বড়সড় প্রশ্ন থাকে। পাশাপাশি রিজার্ভ ডে’তেও যে ম্যাচ বৃষ্টির কবলে পড়বে না, তার কোনও নিশ্চয়তা নেই।’রিজার্ভ ডেতে খেলা আয়োজন করা হলে প্রচুর পরিমাণে জনবলের প্রয়োজন হবে, বলেন রিচার্ডসন। তিনি বলেন, ‘বিশ্বকাপের একটি ম্যাচ আয়োজন করতে ১ হাজার ২০০ জন লোকের প্রয়োজন পরে। নানা কাজে তারা ম্যাচের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট থাকেন। এখন রিজার্ভ ডে রাখলে আরো লোকের প্রয়োজন পড়বে। তবে আশা করি গ্রুপপর্বে বাকি ম্যাচগুলোর অধিকাংশ ম্যাচেই ফলাফল দেখা যাবে।’

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

আরও