এক বছর নিষিদ্ধ শাহজাদ, কিন্তু কেন?

মানবজমিন প্রকাশিত: ২০১৯-০৮-২০ ০০:০০:০০

বড় শাস্তিই পেলেন মোহাম্মদ শাহজাদ। আচরণবিধি ভঙ্গের দায়ে শাহজাদকে এক বছরের নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে আফগানিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (এসিবি)। আগামী এক বছর কোনো ধরনের ক্রিকেট খেলতে পারবেন না এ আফগান উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। নিষেধাজ্ঞার কারণে শাহজাদ ছিটকে পড়লেন আফগানিস্তান দলের বাংলাদেশ সফর থেকেও। শাহজাদের কেন্দ্রীয় চুক্তিও স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। বিধি ভঙ্গের দায়ে কিছুদিন আগে শাহজাদকে অনির্দিষ্টকালের জন্য নিষিদ্ধ করেছিল আফগানিস্তানের ক্রিকেট বোর্ড। কিন্তু বোর্ডের বিধিমালার ঠিক কত নম্বর ধারা ভেঙেছেন শাহজাদ, সে ব্যাপারে বিস্তারিত উল্লেখ করেনি আফগান বোর্ড। শাহজাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, বোর্ডকে না জানিয়ে তিনি একাধিকবার দেশ ছেড়েছেন, বিদেশ ভ্রমণ করেছেন। বোর্ড আরও জানিয়েছে, নিয়ম রক্ষা কমিটির সঙ্গে গত মাসের ২০ ও ২৫ তারিখে তার দেখা করার কথা ছিল। কিন্তু শাহজাদ সে দুই সভায় অনুপস্থিত ছিলেন । জানা গেছে, বোর্ডকে না জানিয়ে বারবার দেশের বাইরে গেছেন শেহজাদ। পাকিস্তানে গেছেন অনুশীলন করতে। আর এতেই চটেছে বোর্ড। জানিয়েছে, দেশের মধ্যেই ক্রিকেটারদের অনুশীলন করার যথেষ্ট সুযোগ-সুবিধা আছে, তাই দেশের বাইরে যখন-তখন যাওয়ার কোনো দরকার নেই। ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস বিশ্বকাপের মাঝপথে ইনজুরির কথা জানিয়ে আফগানিস্তান দল থেকে বাদ দেয়া হয় শাহজাদকে। পরে সংবাদমাধ্যমকে শাজহাদ বলেন, ‘আমি সুস্থই আছি। বোর্ড আমাকে জোর করে দল থেকে বাদ দিয়েছে।’ মোহাম্মদ শাহজাদের জন্ম পাকিস্তানের পেশোয়ারে। শাহজাদের শৈশব কেটেছে পাকিস্তান-আফগানিস্তান সীমান্তবর্তী এলাকায়। শাহজাদের বাবা-মা মূলত আফগানিস্তানের নঙ্গরহার থেকে উঠে এসেছেন। যে কারণে আফগানিস্তানের হয়ে খেলার সুযোগ ছিল শাহজাদের সামনে, যা তিনি কাজে লাগিয়েছেন। বিয়েও করেছেন পেশোয়ারি এক মেয়েকে। ফলে, প্রায়ই পেশোয়ারে যাওয়া হয় তার। সমপ্রতি সেখানে তাকে অনুশীলন করতে দেখা গেছে। বারবার শাহজাদকে পেশোয়ার থেকে আফগানিস্তানে পাকাপাকিভাবে চলে আসার জন্য আফগান বোর্ড অনুরোধ করলেও শাহজাদ কর্ণপাত করেননি।

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

আরও