কুইক লিঙ্ক : মুজিব বর্ষ | করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব | প্রিয় স্টোর

অস্ত্র বিচার ভারি কড়া!

দেশ রূপান্তর মঈদুল ইসলাম প্রকাশিত: ০৫ মে ২০২১, ১২:২১

ছোরা নাকি ছুরি! তর্ক চলে আদালতে। ফলা আর বাঁট মাপে ইঞ্চিতে। ছুরি হলে বেকসুর খালাস। ছোরা হলেই সর্বনাশ! সাত বছরের কারাবাস। এর চেয়ে আর কম নেই আমাদের অস্ত্র আইনে (ধারা-১৯)। ঊর্ধ্বে তো যাবজ্জীবন। অস্ত্রবিদ্যায় পারদর্শী দূরে থাক, ফৌজদারি বিচারে বসার আগে কাছ থেকে অস্ত্র দেখাও হয়নি বাপজন্মে। বাবা যে ডাক্তার ছিলেন, তিনি না হাতুড়ে না অস্ত্রোপচারী; নিতান্তই জেনারেল প্র্যাকটিশনার। তর্কযুদ্ধের মাঝে অস্ত্র বিচারে পড়তে হয় ধন্দে! জীবন-জীবিকার নানান কাজের সহায়কগুলো ‘অস্ত্র’, ‘হাতিয়ার’ জানি। সংস্কৃত আদি অর্থে ‘অস্ত্র’ হলো যা থেকে কিছু নিক্ষেপ করে হতাহত করা যায় যেমন কামান, বন্দুকাদি, আর আদ্যিকালের তীর-ধনুকাদি। হাতে নিয়ে যেটা দিয়েই হতাহত করা যায় সেটা ‘শস্ত্র’, যেমন ছোরা, তলোয়ারাদি। বাংলায় এসে সব একাকার হয়ে চলে ‘অস্ত্র’। হিন্দি থেকে আসা ‘হাতিয়ার’ শব্দে ‘অস্ত্র’ ও ‘শস্ত্র’ দুটোকেই বোঝালেও চলে না বাংলার আদালতে। 

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

প্রতিদিন ৩৫০০+ সংবাদ পড়ুন প্রিয়-তে

আরও