কুইক লিঙ্ক : মুজিব বর্ষ | করোনা ম্যাপ | করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব

ঋণ পরিশোধের ব্যাখ্যা জানতে পি কেসহ ১২৯ ব্যক্তি–প্রতিষ্ঠানকে তলব

প্রথম আলো হাইকোর্ট প্রকাশিত: ০৭ এপ্রিল ২০২১, ১৮:৫০

আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল লিজিং (আইএলএফএসএল) থেকে ঋণ নিয়ে খেলাপি হওয়া প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারসহ ১২৯ ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানকে তলব করেছেন হাইকোর্ট। ঋণের অর্থ পরিশোধ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখসহ ব্যাখ্যা জানাতে আগামী ২৪ ও ২৫ মে তাঁদের আদালতে হাজির হতে বলা হয়েছে।


প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারের অভিযোগ নিয়ে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) পি কে হালদার দেশের বাইরে পলাতক। তলবের তালিকায় তাঁর সহযোগী হিসেবে পরিচিত উত্তম কুমার মিস্ত্রী, রামপ্রসাদ রায় ও সুব্রত দাসের নামও রয়েছে।


প্রতারণা: চট্টগ্রামে পিকে হালদারের বিরুদ্ধে মামলা


প্রতারণার মাধ্যমে পাঁচ তারকা হোটেল প্রকল্পের শেয়ার হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে চট্টগ্রামে মামলা হয়েছে অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের মামলা নিয়ে বিদেশে পালিয়ে থাকা পি কে হালদারের বিরুদ্ধে।


ওই হোটেল প্রকল্পের প্রায় ৭৭ কোটি টাকার শেয়ার হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে করা মামলায় পি কে হালদারের সঙ্গে তার চার সহযোগীকেও আসামি করা হয়েছে।


রোববার (৪ এপ্রিল) চট্টগ্রামের মহানগর হাকিম সারোয়ার জাহানের আদালতে মামলাটি করেন আব্দুল আলিম চৌধুরী (৫০) নামের এক ব্যবসায়ী। যিনি নগরীর দক্ষিণ খুলশী এলাকার প্রতিষ্ঠান ক্লইস্টন গ্রুপের মালিক।


পি কে হালদারের ৪৫০ শতক জমি ও দুটি ফ্ল্যাট জব্দ


অবৈধ সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের মামলা নিয়ে বিদেশে পালিয়ে থাকা পি কে হালদারের রাজধানীর তিনশ ফুট এলাকার ৪৫০ শতক জমি ও ধানমণ্ডির দুইটি বিলাসবহুল ফ্ল্যাট জব্দ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।


মামলার তদন্তের অংশ হিসেবে রোববার তদন্ত কর্মকর্তা দুদকের উপ-পরিচালক মো. সালাউদ্দিন আদালতের এক আদেশে এসব সম্পত্তি জব্দ করেন বলে সংস্থাটির পরিচালক (জনসংযোগ) প্রনব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন।


গত ২৫ ফেব্রুয়ারি পি কে হালদারের একটি ১০ তলা ভবনসহ এক হাজার ৮০ শতাংশ জমি জব্দ করার আদেশ দেন ঢাকা মহানগর জ্যেষ্ঠ বিশেষ জজ কে এম ইমরুল কায়েশ।


গ্রেনাডার পাসপোর্টও আছে পি কে হালদারের


দুর্নীতি ও অর্থপাচারের মাধ্যমে বিদেশে বাড়ি বানানো বা কেনা—এমন বাংলাদেশি নাগরিক, যাদের দ্বৈত নাগরিকত্ব ও পাসপোর্ট আছে এবং যারা দেশের বিমানবন্দর দিয়ে নিয়মিত যাতায়াত করেন—তাদের বিষয়ে তথ্য জানাতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছিলেন হাইকোর্ট। সেই নির্দেশনা মোতাবেক সংশ্লিষ্ট দফতর থেকে জানানো হয়েছে, দেশে ১৩ থেকে ১৪ হাজার দ্বৈত পাসপোর্টধারী রয়েছেন। হাজার কোটি টাকা আত্মসাতের মামলায় বিদেশে পলাতক এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফাইন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারও তাদের একজন। পি কে হালদার বাংলাদেশের পাশাপাশি ক্যারিবিয়ান সাগরের দ্বীপরাষ্ট্র গ্রেনাডার পাসপোর্টধারী।


গত বছরের ২১ ডিসেম্বর হাইকোর্টের বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি আহমেদ সোহেলের সমন্বয়ে গঠিত ভার্চুয়াল বেঞ্চ ওই দ্বৈত নাগরিকত্ব বা পাসপোর্টধারীদের বিষয়ে তথ্য জানানোর আদেশ দিয়েছিলেন।


এস কে সুর, শাহ আলম গ্রেপ্তার হচ্ছে না কেন: হাই কোর্ট


অর্থ ‘পাচার’ করে দেশের কয়েকটি আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে ‘ধ্বংসের প্রান্তে’ নিয়ে যাওয়া প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারের সহযোগী হিসেবে নাম আসার পরও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর এস কে সুর চৌধুরী ও বর্তমান নির্বাহী পরিচালক শাহ আলমকে দুর্নীতি দমন কমিশন-দুদক কেন এখনও গ্রেপ্তার করছে না, তা নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছে হাই কোর্ট।

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

প্রতিদিন ৩৫০০+ সংবাদ পড়ুন প্রিয়-তে

এই সম্পর্কিত

আরও