কুইক লিঙ্ক : মুজিব বর্ষ | করোনা ম্যাপ | করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব

রাণীনগরে বিএনপি প্রার্থীর পরিচিতি সভায় হামলা

মানবজমিন প্রকাশিত: ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০০:০০

উপনির্বাচন নওগাঁ-৬ রাণীনগরে বিএনপির আয়োজনে বর্ধিতসভা ও দলীয় প্রার্থীর পরিচিতি সভাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপজেলার বাসস্ট্যান্ড এলাকার দলীয় কার্যালয়ে জড়ো হতে থাকেন। হঠাৎ রাণীনগর উপজেলা বিএনপি অফিসের সামনে একদল উচ্ছৃঙ্খল যুবক জোটবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন স্লোগান দিয়ে বিএনপির দলীয় কর্মসূচি বানচালের চেষ্টা করে। একপর্যায়ে রাণীনগর বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক মোশারফ হোসেন ও ধানের শীষের প্রার্থীর ছোট ভাই এড. মাসুমকে লাঞ্ছিত করে বিএনপির দলীয় অফিসে ওই যুবকরা নানান স্লোগান দিয়ে কয়েক দফা হামলার চেষ্টা করে। পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়ার চেষ্টা করলেও প্রায় ৪ ঘণ্টা ধরে বিএনপির কোনো নেতাকর্মীকে দলীয় কার্যালয় থেকে বের হতে দেয়নি। এ সময় পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে বিশ্ব মানচিত্র পত্রিকার নওগাঁ প্রতিনিধি নাছির উদ্দিনকে রক্তাক্ত জখমসহ দৈনিক আমাদের রাজশাহী পত্রিকার রাণীনগর প্রতিনিধি ও রাণীনগর প্রেস ক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক আবুল বাশার চঞ্চলকে লাঞ্ছিত করে সন্ত্রাসীরা তার মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়।অবশেষে অনেক নাটকীয়তার পর পুলিশ বেস্টুনিতে দুপুর ২টার দিকে জেলা বিএনপি ও কেন্দ্রীয় নের্তৃবৃন্দকে নিয়ে নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শেখ মো. রেজাউল ইসলাম রেজু রাণীনগর দলীয় কার্যালয়ে উপস্থিত হয়। পুলিশের বেস্টুনিতে রাণীনগর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক রোকুনুজ্জামানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা লে. কর্ণেল আব্দুল লতিফ খান (অব)। তিনি বলেন, আমরা গণত্রান্ত্রিক উপায়ে শান্তিপূর্ণভাবে আমাদের দলীয় কার্যালয়ে বর্ধিত সভা ও দলীয় মনোনীত প্রার্থীকে পরিচিত সভার কর্মসূচি ছিল। কিন্তু হঠাৎ করে যুবলীগের এক নেতার নেতৃত্বে একদল যুবক সকাল ১০টা থেকে জয় বাংলা স্লোগান দিয়ে আমাদের কর্মসূচিকে বাধা দেয়া হয়েছে। আমিও এই মাটিতে জন্মগ্রহণ করেছি। এর আগে এরকম কোনো ঘটনা ঘটেনি। যা রাণীনগরের ইতিহাসে ন্যক্কারজনক ঘটনা। আমরা কোনো বাড়াবাড়ি করবো না। আগামী ১৭ই অক্টোবর সারা দিন ধানের শীষে ভোট দেয়ার জন্য সবার প্রতি আহ্বান জানান। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক নাছির উদ্দিন, জেলা তাঁতী দলের সাধারণ সম্পাদক শুকুর আলী, জেলা ছাত্রদলের সাবেক আহ্বায়ক মামুনুর রশিদ রিপন। সভা চলাকালীন সময়ে হামলাচেষ্টা হলে পরিস্থিতি সামাল দিতে পুলিশ লাঠিচার্জ করে।রাণীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ জহুরুল হক জানান, বিএনপির কর্মসূচি শান্তিপূর্ণভাবে করার জন্য আমাদের শক্ত ভূমিকা ছিল। কিছু উচ্ছৃঙ্খল যুবক বিএনপির দলীয় কার্যালয়ে হামলার চেষ্টা করলেও আমাদের শক্ত পদক্ষেপের কারণে তারা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়।

সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি পড়ুন

প্রতিদিন ৩৫০০+ সংবাদ পড়ুন প্রিয়-তে

এই সম্পর্কিত

আরও