বৈঠকে খালেদা-বিনালি

(প্রিয়.কম) রোহিঙ্গাদের দুর্দশা দেখতে বাংলাদেশে সফররত তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম ও  বিএন‌পি চেয়ারপারসন খা‌লেদা জিয়ার সা‌থে বৈঠকে বসেছেন। 

১৯ ডিসেম্বর মঙ্গলবার সন্ধ্যা ৬টা ১৫ মিনিটে রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে দুই নেতার মধ্যে এ বৈঠক শুরু হয়। 

খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে বৈঠকে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবিহ উদ্দিন আহমেদ উপস্থিত আছেন বলে জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান। 

তিনি জানান, বৈঠকে দু’দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়াবলি, রোহিঙ্গা ইস্যু ও বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা হবে। 

এর আগে মঙ্গলবার বিকেল ৩টায় তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিমের সঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে দুটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

বৈঠক শেষে এক যৌথ বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে বাংলাদেশ ও তুরস্ক নিবিড়ভাবে কাজ করে যাবে।’

প্রসঙ্গত, ১৮ ডিসেম্বর সোমবার দিনগত রাত পৌনে ৯টায় টার্কিশ এয়ারক্রাফটে সফরসঙ্গীদের নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী। সেসময় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলী তাকে স্বাগত জানান।

মঙ্গলবার দিনের শুরুতেই সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে মুক্তিযুদ্ধে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী। পরে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধু স্মৃতি যাদুঘর পরদর্শন করেন তিনি।

এ ছাড়া সন্ধ্যা ৭টায় বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন বিনালি। এ ছাড়া রাত ৮টায় বিনালি ইলদিরিমের সম্মানে শেখ হাসিনার দেওয়া নৈশভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের কথা রয়েছে তুরস্কের প্রধানমন্ত্রীর।

সফরের দ্বিতীয় ও শেষ দিন ২০ ডিসেম্বর বুধবার মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের দেখতে কক্সবাজার যাবেন বিনালি ইলদিরিম। পরে বেলা ১২টার দিকে কক্সবাজারের কুতুপালং রোহিঙ্গা আশ্রয় শিবির পরিদর্শন করবেন তিনি।

একইদিনে বেলা ২টার দিকে কক্সবাজার বিমানবন্দর থেকে তুরস্কের একটি বিশেষ বিমানে করে বাংলাদেশ ত্যাগ করবেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত