ভাষাণচরে রোহিঙ্গাদের জন্য ২৩১২ কোটি টাকার প্রকল্প

(প্রিয়.কম) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এক লাখ রোহিঙ্গাকে পুনর্বাসনের জন্য ‘আশ্রয়ণ-৩’ নামের একটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। নোয়াখালীর ভাষাণচরে বাস্তবায়িত হতে যাওয়া এ প্রকল্পে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৩১২ কোটি ১৫ লাখ টাকা।

২৮ নভেম্বর মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় এ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়। এদিন সভায় মোট ১৪টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

জানা যায়, ২০১৯ সালের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের আওতায় নৌবাহিনীর তত্ত্বাবধানে প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হবে। 

একনেকের সভা শেষে এক সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, ‘আপাতত সরকারি নিজস্ব অর্থায়নে এ প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। আশা করছি, উন্নয়ন সহযোগীরা অর্থায়ন করতে এগিয়ে আসবেন।’

প্রকল্পের প্রস্তাবে বলা হয়, নোয়াখালীর ভাষাণচরে মিয়ানমার থেকে বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত এক লাখ রোহিঙ্গার পুনর্বাসনের লক্ষ্যে প্রকল্পটি নেওয়া হয়েছে। 

প্রস্তাবিত প্রকল্পে যে কার্যক্রমগুলো বাস্তবায়িত হবে- ভূমি উন্নয়ন, দ্বীপের নিরাপত্তার জন্য নৌবাহিনীর অফিস ও বাসভবন নির্মাণ, গুচ্ছগ্রাম ও শেল্টার স্টেশন, গুদামঘর, জ্বালানি ট্যাংক, হেলিপ্যাড, চ্যানেল মার্কিং ও মুরিং বয়, বোট ল্যান্ডিং সাইট, পেরামিটার ফেন্সিং ও ওয়াচ টাওয়ার, শোর প্রটেকশন, উপাসনালয়, বাঁধ, অভ্যন্তরীণ সড়ক, পানি নিষ্কাশন অবকাঠামো, নলকূপ ও পানি সরবরাহ অবকাঠামো, মোবাইল টাওয়ার, রাডার স্টেশন, সিসি টিভি, সোলার প্যানেল, জেনারেটর ও বৈদ্যুতিক সাব-স্টেশন স্থাপন ইত্যাদি। একইসঙ্গে প্রকল্পের আওতায় ১১৯টি মোটরযান ক্রয়ের প্রস্তাব রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা নিধন অভিযান শুরুর পর প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ইতোমধ্যে ৬ লাখ ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। তা ছাড়া এর আগে বিভিন্ন সময়ে পালিয়ে আসা প্রায় ৪ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে বসবাস করছে।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত