শবনম ফারিয়া

হারপিকের ক্যাম্পেইনে অভিনেত্রী শবনম ফারিয়ার জোরালো দাবি (ভিডিও)

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২০:৫২
আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৯, ২০:৫২

এগিয়ে যাচ্ছে সমাজ। বদলে যাচ্ছে জীবনযাপন। উন্নত হচ্ছে দেশ। তবুও সচেতনতার ঘাটতি রয়েছে আমাদের অনেকেরই। এ ছাড়াও রয়ে গেছে নানান সংকোচ ও বাধা-বিপত্তি। বাধা ও সংকোচ কাটিয়ে কর্মজীবী নারীরাও এখন পুরুষের পাশাপাশি ঘরের বাইরে যায় প্রতিদিন। নারীর এগিয়ে যাবার প্রতিবন্ধকতা হিসেবে সম্প্রতি ঘরের বাইরে স্বাস্থ্যসম্মত বা নারীবান্ধব টয়লেটর সমস্যা উঠে এসেছে। ২০১৬-২০১৭ সালে নগরীতে ২০০ জনের ওপর এক গবেষণা জরিপে দেখা যায়, ঢাকা শহরে ৮০ শতাংশ নারী ঘর থেকে বের হওয়ার সময় পানি খান না।

পেশাগত দায়িত্ব পালনের স্বার্থে একজন অভিনেতা বা অভিনেত্রীকে প্রায় সময় শুটিং সেটে কাটাতে হয়। অনেক সময় আউটডোর শুটিংয়ের জন্য দূর-দূরান্তেও যেতে হয়। অন্যান্য পেশার নারীদের মতো অভিনয় জগতের নারীদেরও বেশকিছু চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে হয় নিয়মিত, যার মধ্যে অন্যতম একটি সমস্যা হলো স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেটের অভাব। অস্বাস্থ্যকর বা নোংরা টয়লেটে যেতে হবে, এই আশঙ্কায় অভিনেত্রীরা শুটিংয়ে থাকাকালে খুব একটা পানি পান করেন না, করলেও তার পরিমাণ থাকে খুবই অল্প। এ ছাড়া টয়লেটে যাওয়ার প্রয়োজন অনুভব করলেও তা চেপে রাখেন। কিন্তু প্রয়োজনীয় পানি পান না করা বা দীর্ঘক্ষণ টয়লেটে যেতে না পারার কারণে তাদের কেউ কেউ আক্রান্ত হচ্ছেন ভয়াবহ ইউটিআই (UTI-ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন বা মূত্রনালির সংক্রমণ) রোগে।

আমাদের দেশে নারীবান্ধব টয়লেটের খুবই অভাব। ব্যবহার উপযোগী টয়লেট না থাকায় নারীদের স্বাস্থ্য ঝুঁকির মুখে পড়তে হয়। কোথাও কোথাও পাবলিক টয়লেট দেখা গেলেও তার অধিকাংশই মূলত পুরুষদের জন্য নির্মিত। এসব টয়লেট আবার প্রায় সময়ই থাকে ব্যবহারের অনুপযোগী, নোংরা। ঘরের বাইরে, অফিসে, বাজারে যখন নানাবিধ কাজে অংশগ্রহণ করার সময় যেন টয়লেটে যেতে না হয় তার জন্য পানি পান করা থেকে বিরত থাকায় নারীদের ইউটিআই (ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন বা মূত্রনালির সংক্রমণ), কিডনির সমস্যাসহ নানাবিধ স্বাস্থ্যগত ঝুঁকি। সারাদিন টয়লেট চেপে রাখায় তাদের ইউটিআই রোগে ভোগার আশঙ্কা বেড়ে যায়। গড়ে প্রতি ১০ জন নারীর মধ্যে ৫ জন নারী ইউটিআই রোগে ভোগেন।

বাড়ির বাইরে নারীদের ব্যবহার উপযোগী টয়লেট না থাকায় একদিকে যেমন অর্থনীতির ওপর তার প্রভাব পড়ে, অন্যদিকে স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে পড়ে। স্বাস্থ্যগত ঝুঁকির কারণে নারীরা কর্মক্ষমতা হারায়। বিশেষত কর্মক্ষেত্রে নারীদের এই ঝুঁকির মাত্রা বেশি। নাগরিক জীবনে অভ্যস্ত নারীরা এ ধরনের সমস্যা মোকাবেলা করে বেশি। অফিস-আদালত, হাসপাতাল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, মার্কেট, শপিং মল, বাস বা রেল স্টেশনের মতো সাধারণ জায়গায়, যেখানে নারী-পুরুষ উভয়েরই যাতায়াত ও বিচরণ, সেখানে নারীরাই সবচেয়ে বেশি ভোগান্তির শিকার হয়।

নারীদের নিত্যদিনের সমস্যা স্বাস্থ্যসম্মত ও নারীবান্ধব টয়লেটের অভাব থেকে সৃষ্ট সমস্যা ইউটিআই থেকে রক্ষা পেতে অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া দাবি জানিয়েছেন পরিচ্ছন্ন টয়লেটের। হারপিক-এর #HarpicAgainstUTI ক্যাম্পেইনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে শবনম ফারিয়া বলেন, ‘চলার পথে আমরা প্রায়ই একটি সমস্যার সম্মুখীন হই, সেটা হচ্ছে বাসার বাইরে নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর টয়েলেট। আমার এমনও অনেক দিন যায় আমি পানি খাই না, কারণ আমার মনে হয় যে আশেপাশে পরিষ্কার টয়লেট পাবো না। কিন্তু অনেক সময় বাধ্য হয়েই নোংরা ও অস্বাস্থ্যকর টয়লেট ব্যবহার করতে হয়। যা থেকে হতে পারে ইউটিআই।’

তিনি আরো বলেন, ‘এখন ২০১৯ সাল। যুগ এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা নারীরা কিন্তু এখন আর পিছিয়ে নেই। পিছিয়ে থাকার সুযোগও নেই। সব বাধা অতিক্রম করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। তাই আসুন সবাই মিলে দাবি জানাই, বাসার বাইরে পরিচ্ছন্ন টয়লেটের। কারণ এটা আমাদের অধিকার।’

ইউটিআই (UTI) সম্পর্কে জানতে হারপিকের ফেসবুক পেজ দেখুন: www.facebook.com/harpicbd

প্রিয় স্পন্সর কনটেন্ট