আদালত প্রাঙ্গণে সাবেকমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী। ছবি: সংগৃহীত

দুদকের মামলায় লতিফ সিদ্দিকী কারাগারে

মোক্তাদির হোসেন প্রান্তিক
নিজস্ব প্রতিবেদক
প্রকাশিত: ২০ জুন ২০১৯, ১৫:৪৪
আপডেট: ২০ জুন ২০১৯, ১৫:৪৪

(প্রিয়.কম) দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) মামলায় আদালতে হাজিরা দিতে এসে জামিন না মঞ্জুর হওয়ায় কারাগারে গেলেন সাবেক বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী।

২০ জুন, বৃহস্পতিবার বগুড়া জেলা জজ ও সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক নরেশ চন্দ্র সরকারের আদালতে হাজির হন। আদালতে জামিনের জন্য আবেদন জানালে বিচারক সরাসরি জামিনের আবেদন নাকচ করে দেন। জামিন না মঞ্জুর হওয়ার পর সরাসরি তাকে বগুড়া কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী পক্ষে আইনজীবী ছিলেন বগুড়া বারের সিনিয়র অ্যাডভোকেট আল মাহমুদ, অ্যাডভোকেট নরেশ মুখার্জী, অ্যাডভোকেট হেলালুদ্দিন। 

মামলার নথিতথ্যের বিবরণ তুলে ধরে বগুড়া দুদকের আইনজীবী পিপি আবুল কালাম আজাদ জানান, বগুড়ার আদমদীঘী উপজেলার দারিয়াপুর এলাকায় বিজেসির নিয়ন্ত্রাধীন একটি ক্রয়কেন্দ্রসহ দুই একর ৩৮ শতক জমি ক্ষমতার অপব্যবহার ও দুর্নীতির আশ্রয় নিয়ে তৎকালীন পাটমন্ত্রী লতিফ সিদ্দিকী বিনা টেন্ডারে তার পূর্বপরিচিতা বগুড়ার জাহানারা রশিদকে লিজ দেন।

উল্লেখিত ক্রয়কেন্দ্রসহ জমির লিজ প্রদান কালে বাজার মূল্য সরকারি অ্যাসেসমেন্ট অনুযায়ী ৬৪ লাখ ৬৩ হাজার ৭শ’ ৯৫ টাকা হলেও তিনি ৪০ লাখ ৬৯ হাজার টাকায় লিজ পত্র লিখে দেন। এর ফলে সরকারের রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে ২৩ লাখ ৪০ হাজার টাকা।

পরবর্তীতে এই সংবাদ গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর দুদক বিষয়টির অনুসন্ধান শুরু করে। অভিযোগের প্রাথমিক সত্যতা পাওয়ার পর দুদকের বগুড়া শাখার এডি আমিনুল ইসলাম ২০১৭ সালের ১০ অক্টোবর তারিখে আদমদীঘী থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলাটির তদন্ত প্রক্রিয়া শেষ করে ২০১৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি তারিখে তিনি মামলাটির চার্জশিট সংশ্লিষ্ট আদালতে দাখিল করেন। আর সেই উল্লেখিত মামলায় জামিনের জন্য বৃহস্পতিবার আদালতে হাজিরা দিতে আসেন সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ সিদ্দিকী। এবং আদালত তার জামিন না মঞ্জুর করে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেয়।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ

আরো পড়ুন