শেষ হল কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭২ তম আসর। ছবি: সংগৃহীত

কান উৎসবের পর্দা নামলো, একনজরে বিজয়ীদের তালিকা

শামীমা সীমা
সহ সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৬ মে ২০১৯, ১৭:৫৫
আপডেট: ২৬ মে ২০১৯, ১৭:৫৫

(প্রিয়.কম) বিশ্ব সিনেমার আন্তর্জাতিক আসর সবচেয়ে সম্মানিত কান চলচ্চিত্র উৎসবের পর্দা নামলো। ২৫ মে, শনিবার সন্ধ্যায় ফ্রান্সের প্যালেইস দে ফেস্তিভাল ভবনের গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে জমকালো পুরস্কার বিতরণের মধ্য দিয়ে ১১ দিনব্যাপী চলা উৎসবটি শেষ হয়।

এবারের উৎসবে সবচেয়ে সম্মানজনক পুরস্কার স্বর্ণপাম জিতে নিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ার ‘প্যারাসাইট’। এর মাধ্যমে ফরাসি উপকূলে দক্ষিণ কোরিয়ার পতাকা উড়ালেন পরিচালক বঙ জুন-হো। প্রতিযোগিতায় ২১টি ছবির সঙ্গে লড়াই করে এ পুরস্কার জিতে নেয় সিনেমাটি। তার হাতে স্বর্ণপাম পুরস্কার তুলে দেন ফরাসি অভিনেত্রী ক্যাথেরিন দেন্যুভ ও এবারের আসরের মূল প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের প্রধান মেক্সিকান নির্মাতা আলেহান্দ্রো গঞ্জালেজ ইনারিতু।

উৎসবে সেরা অভিনেতা নির্বাচিত হয়েছেন স্পেনের অভিনেতা আন্তোনিও ব্যান্দেরাস। তিনি ‘পেইন অ্যান্ড গ্লোরি’ সিনেমায় অভিনয় করে সবার মন জয় করেছেন। আর ব্রিটিশ অভিনেত্রী এমিলি বিচাম সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন ‘লিটল জো’ সিনেমায় অভিনয় করে। অভিবাসন-বিষয়ক সিনেমা ‘আটলান্টিক’ গ্রাঁ প্রিঁ পুরস্কার পেয়েছে। এর পরিচালক মাতি দিওপ কানে ইতিহাস গড়লেন মূল প্রতিযোগিতায় জায়গা পাওয়া প্রথম কৃষ্ণাঙ্গ নারী নির্মাতা হিসেবে।

বহুল আলোচিত কোয়েন্টিন টারান্টিনোর ‘ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন হলিউড’ ফিরেছে খালি হাতে। কেন লোচ, টেরেন্স মালিক, হাভিয়ার দোলান, আবদেল লতিফ কেশিশকেও পুরস্কার-শূন্য থাকতে হয়েছে। তবে কান উৎসবের মূল প্রতিযোগিতায় জায়গা পাওয়াই বড় পুরস্কার। এবারের আয়োজনের অফিসিয়াল পোস্টারে প্রয়াত ফরাসি নারী নির্মাতা আনিয়েস ভারদাকে সম্মান জানানো হয়। অনুষ্ঠান শুরুর আগে লালগালিচায় আলোকচিত্রীদের সামনে শেষবারের মতো দাঁড়িয়েছেন তারকারা।

সমাপনী আয়োজনের শুরুতে ৭২তম আসরের লালগালিচা ও গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন গালা স্ক্রিনিংয়ের আবেগঘন কিছু মুহূর্ত দেখানো হয়। এরপর আলোকিত মঞ্চে হাজির হন মাস্টার অব সিরিমনিস এদুয়ার্দ বেয়া। এরপর একে একে মঞ্চে আসেন প্রতিযোগিতা বিভাগের বিচারকদের সভাপতিরা। পুরস্কার বিতরণী শেষে গ্র্যান্ড থিয়েটার লুমিয়েরে উৎসবের অফিসিয়াল সিলেকশনের অংশ লাস্ট্র স্ক্রিনিং হিসেবে দেখানো হলো অলিভিয়ে নাকাশ ও এরিক তোলেদানো পরিচালিত ‘দ্য স্পেশালস’।

১২দিন ব্যাপী চলা এই উৎসবের বিজয়ীদের তালিকা দেখে নিন একনজরে-

মূল প্রতিযোগিতা বিভাগ

পাম দ’র: প্যারাসাইট (বঙ জুন-হো, দক্ষিণ কোরিয়া)
গ্র্যাঁ প্রিঁ: আটলান্টিক (মাতি দিওপ, সেনেগাল-ফ্রান্স)
সেরা পরিচালক: জ্যঁ-পিয়ের ও লুক দারদেন (ইয়াং আহমেদ, বেলজিয়াম)
জুরি প্রাইজ: লে মিজারেবলস (লাজ লি, মালি-ফ্রান্স) ও বাকুরাউ (ক্লেবার মেনদোনসা ফিলো ও জুলিয়ানো দোরনেলেস, ব্রাজিল)
সেরা অভিনেতা: আন্তোনিও ব্যান্দেরাস (পেইন অ্যান্ড গ্লোরি, স্পেন)
সেরা অভিনেত্রী: এমিলি বিচাম (লিটল জো, যুক্তরাজ্য)
সেরা চিত্রনাট্যকার: সেলিন সিয়ামা (পোর্ট্রেট অব অ্যা লেডি অন ফায়ার, ফ্রান্স)
স্পেশাল মেনশন: ইট মাস্ট বি হ্যাভেন (ইলিয়া সুলেমান, ফিলিস্তিন)
সম্মানসূচক পাম দ’র: আলা দ্যুলো

স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র

সেরা স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি: দ্য ডিস্ট্যান্স বিটউইন আস অ্যান্ড দ্য স্কাই (ভাসিলিস কেকাতোস, গ্রিস)
স্পেশাল মেনশন (স্বল্পদৈর্ঘ্য ছবি): মনস্টার গড (অগাস্তিনা স্যান মার্টিন, আর্জেন্টিনা)

আঁ সাঁর্তে রিগার

সেরা চলচ্চিত্র: দ্য ইনভিজিবল লাইফ অব ইউরিজিসি গুজমাও (করিম আইনুজ, ব্রাজিল)
জুরি প্রাইজ: ফায়ার উইল কাম (অলিভার লাচে, ফ্রান্স)
সেরা অভিনয়: চিয়ারা মাস্ত্রোইয়ান্নি (অন অ্যা ম্যাজিক্যাল নাইট, ফ্রান্স)
সেরা পরিচালক: কান্তেমির বালাগভ (বিনপোল, রাশিয়া)
স্পেশাল জুরি প্রাইজ: লিবার্টি (আলবের্ত চেরা, স্পেন)
বিচারকদের মুগ্ধতা: অ্যা ব্রাদার’স লাভ (মনিয়া শকরি, কানাডা) ও দ্য ক্লাইম্ব (মাইকেল অ্যাঞ্জেলো কভিনো, যুক্তরাষ্ট্র)
জুরি স্পেশাল মেনশন: জোয়ান অব আর্ক (ব্রুনো দুমো, ফ্রান্স)

ক্যামেরা দ’র

সিজার ডায়াজ (আওয়ার মাদারস, বেলজিয়াম-গুয়াতেমালা)

সিনেফঁদাসো

প্রথম পুরস্কার: মানো আ মানো (লুই কোরভয়জিয়ের, সিনেফ্যাব্রিক, ফ্রান্স)
দ্বিতীয় পুরস্কার: হিউ (রিচার্ড ভ্যান, ক্যাল আর্টস, যুক্তরাষ্ট্র)
তৃতীয় পুরস্কার: অ্যামবিয়েন্স (উইসাম আল জাফারি, দার আল-কালিমা ইউনিভার্সিটি কলেজ অব আর্টস অ্যান্ড কালচার, ফিলিস্তিন) ও দ্য লিটল সৌল (বারবারা রুপিক, পিডব্লিউএসএফটিভিট, পোল্যান্ড)

মঞ্চে ৭২তম কান বিজীরামুক্ত পুরস্কারের তালিকা

ফিপরেস্কি

মূল প্রতিযোগিতা: ইট মাস্ট বি হ্যাভেন (ইলিয়া সুলেমান, ফিলিস্তিন)
আঁ সাঁর্তে রিগার: বিনপোল (কান্তেমির বালাগভ, রাশিয়া)
প্যারালাল সেকশন (ডিরেক্টরস ফোর্টনাইট): দ্য লাইটহাউস (রবার্ট এগারস, যুক্তরাষ্ট্র)

ইকুমেনিকাল প্রাইজ

ইকুমেনিকাল জুরি প্রাইজ: অ্যা হিডেন লাইফ (টেরেন্স মালিক, যুক্তরাষ্ট্র)

ক্রিটিকস উইক

নেসপ্রেসো গ্র্যান্ড প্রাইজ: আই লস্ট মাই বডি (জেরেমি ক্ল্যাপা, ফ্রান্স)
সেরা চিত্রনাট্য (এসএসিডি অ্যাওয়ার্ড): আওয়ার মাদারস (সিজার ডায়াজ, বেলজিয়াম-গুয়াতেমালা)
গ্যান ফাউন্ডেশন অ্যাওয়ার্ড: ভাইভারিয়াম (লরক্যান ফিনেগান, আয়ারল্যান্ড)
লুই রোদোরার ফাউন্ডেশন রাইজিং স্টার অ্যাওয়ার্ড: ইঙ্গভার সিগারোসন (অ্যা হোয়াইট, হোয়াইট ডে, আইসল্যান্ড)
স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র (লেইকা সিনে ডিসকভারি প্রাইজ): শি রানস (শি ইয়াঙ, চীন)
ক্যানাল প্লাস অ্যাওয়ার্ড: উইদাউথ ব্যাড ইনটেনশন (আন্দ্রেয়াস হোজেনিন, ডেনমার্ক)

ডিরেক্টরস ফোর্টনাইট

ইউরোপা সিনেমাস লেবেল অ্যাওয়ার্ড (সেরা ইউরোপীয় চলচ্চিত্র): অ্যালিস অ্যান্ড দ্য মেয়র (নিকোলাস পারিজার, ফ্রান্স)
এসএসিডি অ্যাওয়ার্ড (সেরা ফরাসি ভাষার ছবি): অ্যান ইজি গার্ল (রেবেকা জোলোতস্কি)
স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র: স্টে অ্যাওয়েক, বি রেডি (ফাম, থিন আন, ভিয়েতনাম)
ক্যারোস দ’র: জন কার্পেন্টার

ভালকান অ্যাওয়ার্ড (কারিগরি শিল্পী)

ভালকান অ্যাওয়ার্ড: ফ্লোরা ভলপেলিয়ের (সম্পাদনা, ল্যঁ মিজারেবলস) ও জুলিয়েন পুপার (সেট-লাইট ডিজাইন, ল্যঁ মিজারেবলস)
স্পেশাল মেনশন: ক্লেয়ার ম্যাতো (চিত্রগ্রহণ, আটলান্টিক ও পোর্ট্রেট অব অ্যা লেডি অন ফায়ার)
শিল্প নির্দেশনা মেনশন: লি হা-জান (প্যারাসাইট)

কুইয়ার পাম (সমকামি ছবি)

কুইয়ার পাম অ্যাওয়ার্ড: পোর্ট্রেট অব অ্যা লেডি অন ফায়ার (সেলিন সিয়ামা, ফ্রান্স)
স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের কুইয়ার পাম: দ্য ডিস্ট্যান্স বিটউইন আস অ্যান্ড দ্য স্কাই (ভাসিলিস কেকাতোস, গ্রিস)

পাম ডগ (সেরা কুকুর শিল্পী)

পাম ডগ অ্যাওয়ার্ড: ব্র্যান্ডি (ওয়ান্স আপন অ্যা টাইম ইন...হলিউড)
গ্রাঁ জুরি প্রাইজ: লিটল জো ছবির কুকুররা

লই দ’র (দ্য গোল্ডেন আই): ফর সামা (ওয়াদ আল-কাতিব ও এডওয়ার্ড ওয়াটস) ও দ্য করডিলেরা অব ড্রিমস (পাত্রিসিও গুজমান, চিলি)
কান সাউন্ডট্র্যাক অ্যাওয়ার্ড: পেইন অ্যান্ড গ্লোরি (আলবার্তো ইগলেসিয়াস)
প্রিঁ ফ্রাঁসোয়া শ্যালে অ্যাওয়ার্ড: অ্যা হিডেন লাইফ (টেরেন্স মালিক, যুক্তরাষ্ট্র)

সূত্র: সিনেমা এক্সপ্রেস

আরো পড়ুন