জানাজা শেষে রাজধানীর বনানীতে ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্ট ঘাতকদের গুলিতে শহিদ স্বজনদের কবরের পাশে জায়ানকে দাফন করা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

১৫ আগস্টের শহিদ স্বজনদের পাশে চিরনিদ্রায় জায়ান

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ২১:১১
আপডেট: ২৪ এপ্রিল ২০১৯, ২১:১১

(প্রিয়.কম) শ্রীলঙ্কায় সন্ত্রাসী হামলায় নিহত জায়ান চৌধুরীর (৮) জানাজা শেষে রাজধানীর বনানীতে ১৯৭৫-এর ১৫ আগস্ট ঘাতকদের গুলিতে শহিদ স্বজনদের কবরের পাশে দাফন করা হয়েছে।

২৪ এপ্রিল, বুধবার বিকেল সোয়া ৫টায় বনানীর চেয়ারম্যান বাড়ি খেলার মাঠে তার জানাজা হয়। বায়তুল মোকাররমের ইমাম জানাজা পড়িয়েছেন।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী বেলা পৌনে ৩টায় শেখ হাসিনা জায়ান চৌধুরীর পরিবারের প্রতি সান্ত্বনা জানাতে আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের রাজধানীর বনানীর বাসায় যান।

প্রধানমন্ত্রী ওই বাসায় এক ঘণ্টারও বেশি সময় অতিবাহিত করে শোকসন্তপ্ত পরিবারকে সান্ত্বনা দেন। এ সময় ওই বাসায় এক হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়। প্রধানমন্ত্রী আট বছর বয়সী নিহত জায়ান চৌধুরীর আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করেন।

উত্তরার একটি স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্র জায়ান মশিউল হক চৌধুরী ও শেখ সোনিয়া দম্পতির পুত্র।

জায়ানের মরদেহ বহনকারী শ্রীলঙ্কান এয়ারলাইন্সের একটি বিমান দুপুর ১২টা ৪২ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে।

শ্রীলঙ্কার রাজধানী কলম্বোতে গত রবিবার সন্ত্রাসীদের বোমা হামলায় জায়ানের বাবা মশিউল আলম চৌধুরীও বোমার স্প্লিন্টারের আঘাতে কিডনি ও লিভারে গুরুতর জখমপ্রাপ্ত হন।

মশিউল দম্পতি তাদের দুই সন্তানকে নিয়ে ছুটি কাটাতে শ্রীলঙ্কায় যান। হোটেলে বোমা বিস্ফোরণের সময় শেখ সোনিয়া তার ছোট পুত্রসহ হোটেল রুমে অবস্থান করছিলেন।

বুধবার সন্ধ্যায় শ্রীলঙ্কার সিরিজ বোমা হামলার ঘটনায় হতাহত এবং জাতীয় সংসদের স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবং আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিমের নাতি জায়ান চৌধুরীর মৃত্যুতে জাতীয় সংসদে শোক প্রস্তাব করা হয়।

শ্রীলঙ্কার বিভিন্ন গির্জা ও হোটেলে সিরিজ বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৩৫৯ জন নিহত ও ৫০০ জনের মতো আহত হয়েছেন।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল/আজাদ চৌধুরী

আরো পড়ুন