পিরিয়ড শুরুর ঠিক আগে মাথাব্যথা হতে পারে। ছবি: প্রিয়.কম

প্রতি মাসে বিশেষ একটি সময়ে মাথাব্যথা হয়?

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২০ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:০৫
আপডেট: ২০ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:০৫

(প্রিয়.কম) মাসের একটি নির্দিষ্ট সময়ে পিরিয়ড হওয়ার কারণে বেশ কিছু সমস্যায় ভোগেন একজন নারী; যেমন পেটে ব্যথা, পেট ফাঁপা এবং মেজাজের ওঠা-নামা। কিন্তু পিরিয়ড শুরুর ঠিক আগে বা শুরু হওয়ার পরপরই যদি তীব্র মাথাব্যথা হয়, তাহলে বুঝতে পারবেন, এটাও হরমোনের কারণেই হচ্ছে।

পিরিয়ডের সময়ে মাথায় হাতুড়ি পেটার মতো ব্যথা হলে সেই নারী মেনস্ট্রুয়াল মাইগ্রেনে ভুগছেন বলে ধরে নেওয়া যায়। এগুলো সাধারণত ইস্ট্রোজেন হরমোনের মাত্রা কমে যাওয়ার কারণে দেখা যায়। হরমোন কমে যাওয়ার কারণেই পিরিয়ডও শুরু হয়, তাই এ দুটো একে অপরের সঙ্গে জড়িত।  

মাথাব্যথাটা আসলেই মেনস্ট্রুয়াল মাইগ্রেন কি না কী করে বুঝবেন?

মাইগ্রেন এমন একধরনের মাথাব্যথা, যার বিশেষ কিছু বৈশিষ্ট্য আছে। মাইগ্রেন হয়ে থাকে মাথার একদিকে, ঢেউয়ের মতো বারবার ব্যথাটা আঘাত করে, আর এতে আলো, শব্দ বা গন্ধের প্রতি সংবেদনশীলতা থাকতে পারে, বমি ভাব বা বমি হতে পারে।

শুধু তা-ই নয়, মাইগ্রেন নারীদের মাঝেই বেশি হয়। ৪৩ শতাংশ নারী জীবনে কখনো না কখনো মাইগ্রেনে ভোগেন। অন্যদিকে মাত্র ১৮ শতাংশ পুরুষের জীবনে মাইগ্রেন দেখা দেয়। সাধারণত বয়ঃসন্ধিকালে পিরিয়ড শুরু হওয়ার পর থেকেই নারীদের মাঝে মাইগ্রেনে ভোগার প্রবণতা বাড়ে।

মেনস্ট্রুয়াল মাইগ্রেন থেকে মুক্তি পাবেন কী করে?

আপনার যদি পিরিয়ডের সময়ে মাইগ্রেনের সমস্যা দেখা দেয়, তাহলে ডাক্তারের সঙ্গে কথা বলুন। অনেক সময়ে কম ডোজের জন্মনিয়ন্ত্রণ ওষুধ এ ক্ষেত্রে কাজে আসে। এতে মাইগ্রেনের পাশাপাশি পিরিয়ডের অন্যান্য যন্ত্রণাদায়ক উপসর্গগুলোও কমে আসবে। আর আপনি যদি পিল না খেয়ে থাকেন, তাহলে কফি বা চা পান কমিয়ে দিন এবং দরকার হলে কম ডোজের পেইনকিলার খেতে পারেন।

সূত্র: পপসুগার

প্রিয় লাইফ/আজাদ চৌধুরী

আরো পড়ুন