আপনার রান্নাঘরে সবসময় কিছু জিনিস রাখা উচিত। ছবি: সংগৃহীত

বেকিং করতে ভালোবাসেন? সবসময় রান্নাঘরে রাখুন এই জিনিসগুলো

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৫
আপডেট: ১৯ এপ্রিল ২০১৯, ১৫:৪৫

(প্রিয়.কম) বেকিং করতে করতে বুঝে গেছেন, অন্যান্য রান্নার চেয়ে এই কাজটিই আপনার বেশি প্রিয়। মাঝে মাঝেই বেকিং করতে বসে যান আপনি। তা যদি সত্যি হয় তাহলে আপনার রান্নাঘরে সবসময় কিছু জিনিস রাখা উচিত। যে কোনো কেক, কুকি, ব্রাউনি এমনকি পাউরুটির রেসিপিতে এসব জিনিস কাজে আসবে। দেখে নিন কী সেসব উপকরণ-

১) ময়দা

ভালো মানের ময়দা রাখুন এয়ারটাইট কৌটায়, ঠান্ডা, অন্ধকার একটি শেলফে। ময়দার পাশাপাশি কর্ন ফ্লাওয়ারটাও রাখতে হবে, তা প্রায়ই দরকার হয়।

২) ফ্যাট

বিভিন্ন ধরনের ফ্যাট ব্যবহার করতে পারেন বেকিং করতে। ইদানিং আনসল্টেড বাটার বেশি ব্যবহার হয়ে থাকে। এর পাশাপাশি ভেজিটেবল অয়েল বা শর্টেনিং ব্যবহার করতে পারেন।

৩) লিভেনার্স

বেকিং করতে গেলে দুটো জিনিস লাগেই, তা হলো বেকিং পাউডার এবং বেকিং সোডা। দুটোই রাখা উচিত কারণ এ দুটো দুই ধরনের কাজ করে। যেসব রেসিপিতে এসিডিক উপাদান আছে যেমন দই, বাটারমিল্ক, ভিনেগার বা লেবু, সেখানে বেকিং সোডা লাগে। অন্যদিকে বেকিং পাউডারে এসিড দেওয়াই থাকে। এই দুটি উপাদানের পাশাপাশি ক্রিম অব টারটারও রাখতে পারেন। যদি পাউরুটি তৈরির ইচ্ছে থাকে, তাহলে এগুলোর পাশাপাশি রাখতে হবে ইস্ট। আর লিভেনার হিসেবে এসব রাসায়নিকের পাশাপাশি ডিমও রাখতে হবে।

৪) ডেইরি

অনেক রেসিপিতে দই বা বাটারমিল্ক কাজে আসে। কিন্তু বেশিরভাগ রেসিপিতে আপনার সাধারণ দুধ দরকার হবে। ক্রিম চিজও রাখতে পারেন বাসায়। এ ছাড়া ঝটপট রেসিপিতে ব্যবহারের জন্য ইভাপোরেটেড মিল্ক বা কনডেন্সড মিল্ক রাখতে পারেন।

৫) সুইটনার

বেকিং করতে গিয়ে বেশিরভাগ সময়ে মিষ্টি খাবারই তৈরি হয়। তাই এর জন্য চিনি বা অন্য কোনো সুইটনার লাগেই। চিনি, কনফেকশনার’স সুগার, ব্রাউন সুগার, কর্ন সিরাপ বা মধু রাখতে পারেন এর জন্য।

৬) ফ্লেভার

বেকিং করতে গিয়ে সবচেয়ে বেশি ব্যবহার হয় ভ্যানিলা এক্সট্রাক্ট। প্রায় সব বেকিংয়ের জন্য এটা কাজে আসে। এ ছাড়া দারুচিনি, আদা ও জায়ফল গুঁড়া রাখাও জরুরি।

৭) চকলেট

হ্যাঁ, চকলেট এ সব উপকরণের চেয়ে আলাদা! একেক রেসিপিতে একেক রকম চকলেট ব্যবহার করতে বলা হয়। তবে আপনি রাখতে পারেন বেকিং কোকো পাউডার এবং সেমি সুইট চকলেট বার। এর পাশাপাশি কিছু চকলেট চিপসও রাখতে পারেন।

এ তো গেলো অত্যাবশ্যকীয় উপাদানগুলোর কথা। এর পাশাপাশি রাখতে পারেন বিভিন্ন ধরনের বাদাম, কিসমিস, ড্রাই ফ্রুটস, পিনাট বাটার, ওটস ইত্যাদি।

সূত্র: রিডার্স ডাইজেস্ট

প্রিয় লাইফ/রুহুল

আরো পড়ুন