ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার রাহুল দ্রাবিড়। ছবি: সংগৃহীত

ভোট দিতে পারবেন না কিংবদন্তি রাহুল দ্রাবিড়

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:১৮
আপডেট: ১৫ এপ্রিল ২০১৯, ২১:১৮

(প্রিয়.কম) ভারতের কিংবদন্তি ক্রিকেটার তিনি। নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে রাহুল দ্রাবিড়ের সম্পর্কটাও বেশ ভালো। ভারতের সাবেক এই ব্যাটসম্যান নির্বাচন কমিশনের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করছেন। কর্ণাটকের সবখানে দ্রাবিড়ের পোষ্টারে ছেয়ে গেছে। জনসাধারণকে ভোটমুখী করতে দ্রাবিড়কে মুখপাত্র হিসেবে বেছে নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। অথচ আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে ভোট দিতে পারবেন না দ্রাবিড়।

সবাই হয়তো ধরে নেবেন, ক্রিকেট বা কোচিংয়ের কাজে দেশের বাইরে থাকায় ভোট দিতে পারবেন না দ্য ওয়াল খ্যাত দ্রাবিড়। কিন্তু এমন কোনো কারণ নেই। লোকসভা নির্বাচন চলাকালীন দেশেই থাকবেন শচীন টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলিদের এই সতীর্থ। ভোটার তালিকা থেকে দ্রাবিড়ের নাম বাদ পড়েছে। যে কারণে ভোট দেওয়া হচ্ছে না ভারতের সাবেক এই অধিনায়কের।

এমন খবরে অনেকেই রীতিমতো অবাক। যার ছবি, পোস্টার, ভিডিও ব্যবহার করে জনসাধারণকে সচেতন করা হচ্ছে, সেই দ্রাবিড়ের নামই নেই ভোটার তালিকায়! এমন হওয়ার কী কারণ? নির্বাচন কমিশন জানিয়েছে, দ্রাবিড় আগে বেঙ্গালুরুর পৈত্রিক বাড়ি ইন্দিরা নগরে থাকতেন। যেটা বেঙ্গালুরুর সেন্ট্রাল লোকসভা কেন্দ্রের আওতায় পড়ে।

বর্তমানে দ্রাবিড় বেঙ্গালুরুর মালেশ্বরম এলাকায় স্থায়ীভাবে বাস করছেন। এই এলাকা বেঙ্গালুরুর নর্থ কেন্দ্রের অন্তর্ভুক্ত। বাড়ি বদলানোর কয়েকদিন পর দ্রাবিড়ের নাম আগের এলাকার ভোটার তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার জন্য আবেদন করেন তার ভাই বিজয় দ্রাবিড়। আবেদনের প্রেক্ষিতে দ্রাবিড়ের নাম কেটে দেয় নির্বাচন কমিশন।

আইন অনুযায়ী, নতুন করে নাম তুলতে আবেদন করতে হয়। কিন্তু নির্বাচন কমিশনের দাবি, দ্রাবিড় সেই আবেদন করেননি। তাহলে এমন একজনকে কীভাবে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর করা হলো?

এমন প্রশ্ন উঠতেই নড়েচড়ে বসে নির্বাচন কমিশন। তাদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, দ্রাবিড়ের নাম তোলার জন্য তার নতুন বাড়িতে একাধিকবার যাওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রতিবারই তাদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়। অর্থাৎ, দ্রাবিড়ের পরিবারের কারণেই ভোটার তালিকায় তার নাম নেই বলে দাবি নির্বাচন কমিশনের।

আরো পড়ুন