মানবপ্রীতিতে সাম্মানিক ডক্টরেট দেওয়া হলো বলিউডের কিং অব রোমান্স অভিনেতা শাহরুখ খানকে। ছবি: সংগৃহীত

মানবপ্রীতিতে সাম্মানিক ডক্টরেট ডিগ্রি পেলেন শাহরুখ

শামীমা সীমা
সহ সম্পাদক
প্রকাশিত: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:৩৯
আপডেট: ০৫ এপ্রিল ২০১৯, ১৬:৩৯

(প্রিয়.কম) বেডফোর্ডশায়ার এবং এডিনবারগ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দুটি সম্মানসূচক ডক্টরেট ইতোমধ্যেই রয়েছে বলিউড বাদশাহ শাহরুখ খানের ঝুলিতে। আবারও শাহরুখের মুকুটে যুক্ত হলো নয়া পালক। লন্ডনের ইউনিভার্সিটি অব ল’ থেকে ডক্টরেট পেলেন কিং খান। যে কারণে ভক্তরা তাকে ড. শাহরুখ খান বলতেই পারেন। এবার ফিলনথ্রফিতে অর্থাৎ মানবপ্রীতিতে সাম্মানিক ডক্টরেট দেওয়া হলো বলিউডের কিং অব রোমান্স অভিনেতাকে।

গতকাল ৪ এপ্রিল, বৃহস্পতিবার লন্ডন ইউনিভার্সিটি অব ল’র গ্র্যাজুয়েশন অনুষ্ঠানে ৩৫০ জন ছাত্রছাত্রীর উপস্থিতিতে শাহরুখের হাতে এই সাম্মানিক তুলে দেওয়া হয়। এ জন্য লন্ডন ইউনিভার্সিটি অব ল’কে ধন্যবাদ জানিয়ে টুইট করেছেন শাহরুখ।

ডিগ্রি নেওয়ার পর শাহরুখ বলেন, ‘দান সসম্মানে কিন্তু নিঃশব্দে করা উচিত। নিজের দান-ধ্যানের কথা ফলাও করে প্রচার করা ঠিক নয়। যে বিষয়গুলো আমার ভালো লাগে, সেগুলোর জন্য কাজ করেছি। জনতার দরবারে আমার যে পরিচিতি আছে, সেই পরিচিতিকে কাজে লাগিয়ে আমি এই কাজগুলো আরও বেশি ভালোভাবে করতে পারি। সেবামূলক কাজ আমার হৃদয়ের ভীষণ কাছের।’

মানবপ্রীতিতে সাম্মানিক ডক্টরেট দেওয়া হলো অভিনেতা শাহরুখ খানকে। ছবি: সংগৃহীত

এ ছাড়া নারীদের ক্ষমতায়ন, দুস্থদের পুনর্বাসন, মৌলিক অধিকার রক্ষা ইত্যাদি নিয়ে কাজ করেছেন শাহরুখ। সঙ্গে এও জানান, যা তিনি পাচ্ছেন, তা বিশ্বকে ফিরিয়ে দেওয়া তার কর্তব্যের মধ্যে পড়ে। সাম্মানিক ডক্টরেট ডিগ্রির জন্য তিনি কৃতজ্ঞ।

শাহরুখের নিজস্ব স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মীর ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজ করা হয়। বিশেষ করে গত বছরই ভারতের এসিড আক্রান্ত মেয়েদের সাহায্যার্থে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন শাহরুখ। তার অবর্তমানে এই কাজের দায়িত্ব তার মেয়ে সুহানা খান সামলাবে বলেও ঘোষণা করেছিলেন কিং খান। সম্প্রতি এসিড আক্রান্ত মেয়েদের অস্ত্রোপচারের দায়িত্ব নেওয়ার কথাও জানিয়েছেন শাহরুখ। পাশাপাশি আরও বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজের সঙ্গে জড়িত বলিউড বাদশাহ।

এখন পর্যন্ত প্রায় ৮০টিরও বেশি বলিউড সিনেমাতে দেখা গেছে শাহরুখ খানকে। এ ছাড়া রেড চিলিজ এন্টারটেইনমেন্ট নামে নিজের প্রযোজনা সংস্থা রয়েছে তার। ২০০৩ সালে তৈরি হওয়া এই সংস্থাটি এখন পর্যন্ত অনেক সিনেমাই প্রযোজনা করেছে। পাশাপাশি রেড চিলিজ ভিএফএক্স ও কালার্স নামে স্টুডিওও রয়েছে তার নামে। খেলার দুনিয়াতেও উজ্জ্বল কিং খানের নাম। আইপিএলে কলকাতা নাইট রাইডার্স টিমের অন্যতম মালিক তিনি।

এ ছাড়া পালস পোলিও, ন্যাশনাল এইডস কন্ট্রোল অর্গানাইজেশনসহ একাধিক সংস্থার সঙ্গে যুক্ত শাহরুখ। কাজ করেছেন মানবাধিকার নিয়েও। নিজের এনজিও রয়েছে তার। এসিড আক্রান্তদের জন্যও কাজ করেছেন তিনি। এর জন্য তিনি ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরাম থেকে ২০১৮ সালে ক্রিস্টাল অ্যাওয়ার্ড পান।

সূত্র: ইন্ডিয়া টুডে

প্রিয় বিনোদন/আজাদ চৌধুরী