কয়েক বছর ধরে পুরুষের জন্যেও জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল তৈরির গবেষণা চলছে। ছবি: সংগৃহীত

পুরুষের জন্য জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল নিরাপদ: প্রমাণিত হলো গবেষণায়

কে এন দেয়া
সহ-সম্পাদক
প্রকাশিত: ২৭ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৯
আপডেট: ২৭ মার্চ ২০১৯, ২০:৪৯

(প্রিয়.কম) বর্তমানে নারীরা জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল গ্রহণ করেন, এটাকেই অনেকে স্বাভাবিক বলে ধরে নেন। কিন্তু কয়েক বছর ধরে পুরুষের জন্যেও জন্মনিয়ন্ত্রণ পিল তৈরির গবেষণা চলছে। অবশেষে এমন একটি পিল নিরাপদ বলে প্রমাণিত হয়েছে এক হিউম্যান ট্রায়ালে।  অর্থাৎ তা মানুষের ওপর পরীক্ষা করে দেখা গেছে তা নিরাপদ।

জার্নাল অব ক্লিনিক্যাল এন্ডোক্রাইনোলজি অ্যান্ড মেটাবলিজমে এই গবেষণার তথ্য প্রকাশিত হয়।

লস অ্যাঞ্জেলেস বায়োমেডিক্যাল রিসার্চ ইনস্টিটিউট এবং হার্বার ইউসিএলএ মেডিক্যাল সেন্টারের গবেষক ক্রিস্টিনা ওয়াং এক বিবৃতিতে জানান, এই পিল ব্যবহারে শুক্রাণু উৎপাদন কমবে এবং পুরুষের যৌন আকাঙ্খায় কোনো ভাটা পড়বে না।  তিনি আরও বলেন, ‘পুরুষের জন্য নিরাপদ এবং অস্থায়ী হরমোনভিত্তিক জন্মনিয়ন্ত্রণ আসবে ১০ বছরের মাঝেই।’

এই পিলের নাম হলো ১-বেটা-এমএনটিডিসি। এতে এক ধরনের টেস্টোস্টেরন আছে যা একই সঙ্গে অ্যান্ড্রোজেন ও প্রজেস্টেরন হরমোনের কাজ করে। প্রজেস্টেরন শরীরে টেস্টোস্টেরন ও শুক্রাণু উৎপাদন কমায়, অন্যদিকে টেস্টোস্টেরন কমে যাওয়ার প্রভাবগুলো সামলাতে কাজ করে অ্যান্ড্রোজেন।

২৮ দিন ধরে ৩০ জন সুস্থ পুরুষ এই ওষুধ গ্রহণ করেন। ১৪ জন পুরুষ ২০০ মিলিগ্রাম করে, ১৬ জন ৪০০ মিলিগ্রাম করে এবং আরও ১০ জন পুরুষ প্লাসিবো ক্যাপসুল (কোনো ওষুধবিহীন ক্যাপসুল) গ্রহণ করেন এই সময়ের মাঝে। গবেষকরা পুরুষের শুক্রানুর পরিমাণ কমেছে কিনা তা দেখেননি, কারণ শুক্রাণুর পরিমাণে পরিবর্তন আসতে কয়েক মাস সময় লাগে। তবে ওষুধ খাওয়ার ফলে আসলেই হরমোনের পরিমাণে পরিবর্তন আসে, যা কিনা শুক্রাণুর পরিমাণ কমাতে কার্যকরী হবে।

পুরুষদের সবচেয়ে বড় প্রশ্ন, এই জন্মনিয়ন্ত্রণ পিলের কী কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া আছে?

না, বড় কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি, তবে কারও কারও ক্লান্তি, মুখে ব্রণ হওয়া বা মাথাব্যথা দেখা যায়। পাঁচজন পুরুষ জানান, তাদের যৌন উত্তেজনা অল্প কিছুটা কমে গেছে, আর দুইজনের মৃদু ইরেকটাইল ডিসফাংশন হতে দেখা যায়। তবে এতে তাদের যৌন জীবনে কোনো সমস্যা হয়নি। এতে যদি আপনার মনে হয় পিলটি পুরুষের জন্য নিরাপদ নয় তাহলে মনে রাখুন, নারীরা যে পিল খায় তাতে আরও বড় ধরনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে দেখা যায়। মুড সুইং থেকে শুরু করে মাথাব্যথা, বমি, যৌন ক্ষমতা কমে যাওয়া, ওজন বাড়া এমনকি ডিপ্রেশনের ঝুঁকি বেড়ে যেতে পারে। সে তুলনায় পুরুষদের এই পিলের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া বলতে গেলে কিছুই না।

সূত্র: আইএফএলসায়েন্স

প্রিয় সংবাদ/কামরুল