প্রতীকী ছবি

প্রেমিক-প্রেমিকাবিষয়ক ১টা বেশি দুই হালি জোকস

প্রিয় ডেস্ক
ডেস্ক রিপোর্ট
প্রকাশিত: ১৮ মার্চ ২০১৯, ১৪:২৭
আপডেট: ১৮ মার্চ ২০১৯, ১৪:২৭

(প্রিয়.কম) নিজের চনমনে ভাব বজায় রাখতে হাসির কোনো বিকল্প নেই। নানা কারণে মানুষ হেসে থাকেন। এর অন্যতম একটি অনুষঙ্গ হচ্ছে জোকস। প্রেমিক-প্রেমিকাবিষয়ক মজার কিছু জোকস।

প্রথম পুরুষ LOL

এক মেয়ে নতুন ফেসবুক চালাচ্ছে! সে ভাবছিল Lot Of Love-কে সংক্ষেপে LOL বলা হয়! সে একদিন তার বয়ফ্রেন্ডকে একটা ম্যাসেজ পাঠাল! সেটা দেখে তার বয়ফ্রেন্ডের জ্ঞান হারানোর অবস্থা। ম্যাসেজটা ছিল, ‘তুমিই আমার জীবনে প্রথম পুরুষ LOL’।

বিয়ের আগে এক বিছানায়

বল্টু এক ঋষির কাছে গিয়ে জিজ্ঞাসা করল-
বল্টু: আচ্ছা ঋষি বাবা, বিয়ের আগে যদি প্রেমিক-প্রেমিকা রাতে এক বিছানায় ঘুমায় তাহলে কি পাপ হয়?
ঋষি: ঘুমালে তো পাপ হয় না বৎস, কিন্তু সমস্যা হলো তোরা তো ঘুমাস না!

ভালবাসার ওজন

প্রেমিক: বলো তো, ভালেবাসার ওজন কত?
প্রেমিকা: কত?
প্রেমিক: ৮০ কেজি।
প্রেমিকা: কীভাবে?
প্রেমিক: আরে, ভালোবাসতে তো ‘দুই মন’ লাগে!
প্রেমিকাঃ অহ!

একটা চুমো

বান্ধবীকে রাতের বেলা বাড়ি পৌঁছে দিতে এসেছে বাবু। দরজার পাশে দেয়ালে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে বলল সে, ‘একটা চুমো খেতে দাও আমাকে।’
‘কী? তুমি পাগল হলে? এখানে দাঁড়িয়ে, না না না!’
‘আরে কেউ দেখবে না। এসো, একটা চুমো।’
‘না না, খুব ঝামেলা হবে কেউ দেখে ফেললে।’
‘আরে জলদি করে খাব, কে দেখবে?’
‘না না, কখনো এভাবে আমি চুমো খেতে পারব না।’
‘আরে এসো তো, আমি জানি তুমিও এমনটাই চাইছ, খামোকা এমন করে না লক্ষ্মী!’
এমন সময় দরজা খুলে গেল, বান্ধবীর ছোট বোন ঘুম ঘুম চোখে দাঁড়িয়ে। চোখ ডলতে ডলতে সে বলল, ‘আপু, বাবা বলেছে, হয় তুমি চুমো খাও, নয়তো আমি চুমো খাই, নয়তো বাবা নিজেই নিচে নেমে এসে লোকটাকে চুমো খাবে! কিন্তু তোমার বন্ধু যাতে আল্লার ওয়াস্তে ইন্টারকম থেকে হাতটা সরায়।’

ভালবাসাতো ভাই

পলি আর তার বয়ফ্রেন্ড রফিক বসে গল্প করছে। এমন সময় পলির ৩ জন বান্ধবী এসে হাজির। এসেই প্রশ্ন করতে শুরু করে
বান্ধবীরা: টিনা এটা কে রে?
পলি: আমার ভাই।
বান্ধবীরা: কেমন ভাই রে, চাচাতো?
পলি: না।
বান্ধবীরা: মামাতো?
পলি: না।
বান্ধবীরা: খালাতো?
পলি: না।
বান্ধবীরা: ফুফাতো?
পলি: না।
বান্ধবীরা: (রেগে গিয়ে) কী ভাই বলবি তো?
পলি: ও আমার ভালবাসাতো ভাই!!

আরে উজবুক

ভার্সিটির এক ছেলে এক মেয়েকে টিজ করার উদ্দেশ্যে বলছে-
ছেলে: যাইবা নাকি কাজি অফিস?
মেয়ে: চল!
ছেলে: কই যামু?
মেয়ে: প্রিন্সিপালের কাছে!
ছেলে: ওমাহ্! আপু আপনের লগে কি একটু মশকরাও করা যাইব না!
মেয়ে: আরে উজবুক, ছুটি নিতে হবে না?

low battery

মেয়ে: আমার মোবাইলটা বেশিরভাগ সময় আম্মুর হাতে থাকে।
ছেলে: তাহলে তো বিপদ, যদি ধরা পরে যাই?
মেয়ে: চিন্তা করো না, আমি তো নাম low battery নামে সেভ করে রাখছি, তুমি কল করলেই আম্মু আমার কাছে ফোন চার্জ দিতে বলে।

রোমান্টিক মুডে ফুসকা

বল্টু আর তার প্রেমিকা পিংকি এক প্লেটে ফুচকা খাচ্ছে। একজন আরেকজনের চোখের দিকে তাকিয়ে আছে। খুবই রোমান্টিক পরিস্থিতি।
পিংকি (রোমান্টিক মুডে): ওমন করে কী দেখছ?
বল্টু: আমাকেও এক-দুইটা ফুচকা খেতে দাও। মটকি কোথাকার! সব ফুচকা একা একাই গাল ভরে খাচ্ছে।

উনি কি তোমার স্বামী

ছেলে: আচ্ছা, কালকে যিনি আমার ফোন রিসিভ করলেন, উনি কি তোমার স্বামী?
মেয়ে: ছি! আপনি এটা বলতে পারলেন! আপনার মুখে বাধল না?
ছেলে: সরি, ভুল হয়ে গেছে। কিছু মনে করো না প্লিজ!
মেয়ে: ইটস ওকে।
ছেলে: আচ্ছা উনি তাহলে কে ছিলেন?
মেয়ে: আমার ছেলে, ক্লাস টেনে পড়ে!

আরো পড়ুন