(প্রিয়.কম) মায়ানমারের সরকার ও সেনাবাহিনীর দমন অভিযানের কারণে বাংলাদেশে রোহিঙ্গা শরণার্থী বেড়ে যাওয়াকে এ দেশের জন্য বার্মার ইনডাইরেক্ট অ্যাটাক (বার্মার পরোক্ষ আক্রমণ) বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।

১১ সেপ্টেম্বার সোমবার দুপুরে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের পরিচালনা পর্ষদের সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের পরিপ্রেক্ষিতে এ মন্তব্য করেন মন্ত্রী।

সংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আবদুল মুহিত বলেন, ‘হ্যাঁ, ইট ইজ এন অ্যাটাক অন বাংলাদেশ (এটা বাংলাদেশের ওপর আক্রমণ)। এটা বার্মার ইনডাইরেক্ট অ্যাটাক অন বাংলাদেশ। অ্যান্ড ইট মাস্ট বি রেজিস্টেট। ইট ইজ এ রগ (দুর্বৃত্ত) গভর্নমেন্ট এবং রগ (দুর্বৃত্ত) গভর্নমেন্টকে কীভাবে ব্যবস্থা করতে হয়, সেটা আমাদের চিন্তা করতে হবে, আমাদের মানে সারা দুনিয়ার চিন্তা করতে হবে।’

এ সময় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত সংবাদিকদের জানিয়ে দেন এটা তার ব্যক্তিগত মন্তব্য। ভবিষ্যৎ করণীয় হিসেবে মিয়ানমারের ভেতরে নিরাপদ অঞ্চল তৈরির প্রয়োজনীয়তার কথাও উল্লেখ করেন তিনি ।

এ প্রসঙ্গে মুহিত বলেন, ‘সরকার রোহিঙ্গাদের নিয়ে নিজেদের যে নীতিমালা আছে, সে অনুযায়ী কাজ করছে। রোহিঙ্গাদের জন্য যা কিছু করা দরকার তা করা হচ্ছে। তাদের আশ্রয়ও দেওয়া হচ্ছে এবং তাদের জন্য আমরা দাবিও করেছি যে মিয়ানমারে তাদের জন্য একটি জোন সৃষ্টি করার দরকার। আমার মনে হয় আমাদের নীতিমালা ঘোষণা যথোপযুক্ত।’

রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে বিএনপি নেতাদের আন্দোলনের হুমকির বিষয়ে জানতে চাইলে মুহিত বলেন, ‘অন্য কোনো দল কিছু করতে চায় করুক। এটা পার্টি হিসেবে তাদের সিদ্ধান্ত। বিষয়টি সরকার যেভাবে মোকাবিলা করার সেভাবেই করবে। আমার মনে হয় বিএনপির একটা এগজিসটেন্স প্রবলেম (অস্তিত্বের সংকট) হয়ে দাঁড়িয়েছে।’ 

প্রিয় সংবাদ/শান্ত