(প্রিয়.কম) যথাযথ মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য পরিবেশ ও উৎসবের আমেজে ২ সেপ্টেম্বর সারাদেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা ঈদের নামাজ ও মহান আল্লাহর উদ্দেশে পশু কোরবানির মধ্য দিয়ে পালন করবেন অন্যতম বৃহত্তম এই ধর্মীয় উৎসব।

ঈদের দিন সকাল ৮টায় দেশের প্রধান ঈদ জামাত রাজধানীর জাতীয় ঈদগাহ ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে। রাষ্ট্রপতি, বিচারপতি, মন্ত্রী, এমপিসহ বিশিষ্টজনেরা এই ঈদগাহে ঈদের নামাজ আদায় করবেন। জাতীয় ঈদগাহে ঈদ জামাতের ইমামতি করবেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। তবে বিকল্প ইমাম হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ঢাকার মিরপুরের জামেয়া আরাবিয়া’র শায়খুল হাদিস মাওলানা সৈয়দ ওয়াহিদুজ্জামান। এদিকে কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

হযরত ইবরাহীম (আ.)-এর আত্মত্যাগ ও অনুপম আদর্শের প্রতীকী নিদর্শন হিসেবে প্রায় সাড়ে ৪ হাজার বছর আগে থেকে শুরু হয় কোরবানির প্রচলন। আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের নির্দেশে হজরত ইবরাহীম (আ.) তার প্রাণপ্রিয় পুত্র হজরত ইসমাইল (আ.)-কে কোরবানি করতে উদ্যত হয়েছিলেন। ওই অনন্য ঘটনার স্মরণেই মুসলমানেরা ঈদুল আজহার নামাজের পর আল্লাহর উদ্দেশ্যে পশু কোরবানির করেন।

সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণের জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হলেও ঈদুল আজহা উপলক্ষে উত্তর সিটি কর্পোরেশনে উদ্যোগে ১শ’ ৮০টি স্থানে এবং ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে ২শ’ ২৯টি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে জাতীয় ঈদগাহে ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। বৃষ্টি হলে বিকল্প স্থান হিসেবে বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদে সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদের প্রধান জামাতটি হবে। তবে আলাদাভাবে বায়তুল মোকাররমে সকাল ৭টা, ৮টা, ৯টা, ১০টা এবং ১০টা ৪৫ মিনিটে মোট পাঁচটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় সকাল ৮টায় একমাত্র জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

এছাড়া রাজধানীতে আরও বিভিন্ন সময়ে আরও যে সব স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে-

সকাল ৭টা: লালমাটিয়ার মসজিদ-এ-বায়তুল হারাম মসজিদ, মীরবাড়ি আদি জামে মসজিদ, হাজারীবাগ পার্ক।

সকাল ৭.১৫ মিনিট : লক্ষ্মীবাজার মিয়া সাহেব ময়দান শাহ সাহেব বাড়ি জামে মসজিদ, পল্লীমা সংসদ ময়দান, মিরপুরের পল্লবী ডি-ব্লক ঈদগাহ মাঠ এবং আবুজর গিফারী কলেজ মাঠ।

সকাল ৭.৩০টা : বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) মাঠ, এলিফেন্ট রোডের এরোপ্লেন মসজিদ, সায়েদাবাদের চিশতীয়া সাইদিয়া দরবার শরীফ জামে মসজিদ, শাহজাহানপুরের আবুজর গিফারী কলেজ মাঠ, মধ্যবাড্ডা কানু মিয়ার পুকুরপাড় জামে মসজিদ, গুলশান সেন্ট্রাল মসজিদ ও ঈদগাহ ময়দান, মোহাম্মদপুর কৃষিবাজার তাহেরিয়া জামে মসজিদ, মোহাম্মদপুরের জয়েন্ট রোড কোয়ার্টার এলাকার মসজিদ-এ-তৈয়্যেবিয়া, মোহাম্মদপুর কৃষি বাজার তাহেরিয়া জামে মসজিদ, মিরপুরের কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, কল্যাণপুর হাউজিং এস্টেট জামে মসজিদ, পশ্চিম আগারগাঁওয়ের দারুল ঈমান জামে মসজিদ, মিরপুর ১২ নম্বর সেকশন, ব্লক-এ এলাকার হারুন মোল্লা ঈদগাহ, পার্ক ও খেলার মাঠ, ডি-ব্লক এলাকার ঈদগাহ মাঠ, মিরপুর ৬ নম্বর সেকশনের কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, মিরপুর দারুসসালামের মীরবাড়ি আদি (মাদবরবাড়ি) জামে মসজিদ, কামরাঙ্গীরচর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ,  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় খেলার মাঠ (বাংলাদেশ জমিয়তে আহলে হাদিসের জামাত, বৃষ্টি হলে বংশাল আহলে হাদিস বড় জামে মসজিদে সাড়ে ৭টা ও সাড়ে ৮টায়)  

সকাল ৭.৪৫ মিনিট: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) জামে মসজিদ।

সকাল ৮টায় জামাত: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ, নারিন্দার মশুরীখোলা দরবার শরীফ জামে মসজিদ, ধানমন্ডি ঈদগাহ ময়দান, বনানী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, নীলক্ষেতের বাবুপুরা শাহ সাহেব বাড়ির মরিয়ম বিবি শাহি মসজিদ, নূরাণী জামে মসজিদ, মিরপুরের মারকাজে ইশাঅতে ইসলাম ফুরফুরা দরবারের মসজিদ কমপ্লেক্সে, আরামবাগের দেওয়ানবাগ শরীফ,সিদ্ধেশ্বরী হাই স্কুল জামে মসজিদ, লক্ষ্মী বাজার নূরানী জামে মসজিদ।

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে দেশের বৃহত্তম ঈদ জামাত। ফাইল ছবি

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে দেশের বৃহত্তম ঈদ জামাত। ফাইল ছবি

৮.৩০ মিনিটে জামাত: গুলশান সেন্ট্রাল মসজিদ ও ঈদগাহ ময়দান, মিরপুরের কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, কামরাঙ্গীরচর কেন্দ্রীয় ঈদগাহ।

সকাল ৯টায় ঈদের জামাত: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় মসজিদ, মিরপুরের কাজীপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, যাত্রাবাড়ীর বায়তুল জান্নাত জামে মসজিদ।

৯.৩০ মিনিটে জামাত: আরামবাগের দেওয়ানবাগ শরীফ।

সকাল ১০টায় জামাত: আরামবাগের দেওয়ানবাগ শরীফ, নীলক্ষেতের বাবুপুরা শাহ সাহেব বাড়ির মরিয়ম বিবি শাহি মসজিদ।

চট্টগ্রাম

সকাল পৌনে ৮টায় চট্টগ্রাম নগরীর প্রধান জামাত হবে জমিয়তুল ফালাহ জাতীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে। জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের খতিব সৈয়দ আবু তালেব মোহাম্মদ আলাউদ্দিন আল কাদেরী এ জামাতে ইমামতি করবেন। এ ঈদগাহে দ্বিতীয় জামাতে সকাল পৌনে ৯টায় ইমামতি করবেন জমিয়তুল ফালাহ মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম মাওলানা নুর মোহাম্মদ সিদ্দিকী।

গরীর বাকলিয়ায় সিটি করপোরেশন স্টেডিয়ামে সকাল ৮টায়, লালদীঘি সিটি করপোরেশন শাহী জামে মসজিদে সকাল পৌনে ৮টায়, জালাবাদ আরেফিন নগর সিটি করপোরেশন কেন্দ্রীয় কবরস্থান মসজিদে সকাল সোয়া ৮টায় হবে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এবারের ঈদে নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডের ১৬২টি স্থানে ঈদের জামাত হবে।

সিলেট

সিলেট নগরীর ৫০টি স্থানে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে প্রধান ঈদ জামাতটি সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে শাহী ঈদগাহ ময়দানে। বন্দরবাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের ইমাম হাফিজ মাওলানা কামাল উদ্দিন জামাতে ইমামতি করবেন। এছাড়া, বন্দরবাজার হাজী কুদরত উল্লাহ জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, সকাল সাড়ে ৮টায় এবং সকাল সাড়ে ৯টায় তিনটি জামাত হবে। হযরত শাহজালাল (রহ.) দরগাহ জামে মসজিদ ও সিলেট কালেক্টরেট জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়।

রাজশাহী

সকাল সাড়ে আটটায় রাজশাহীর হযরত শাহ মখদুম কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে শাহ মখদুম জামেয়া ইসলামীয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মুফতি মোহাম্মদ শাহাদাত আলীর ইমামতিতে নগরীর ঈদের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। তবে বৃষ্টি হলে একই সময়ে শাহ মখদুম দরগা মসজিদে ভিন্ন সময়ে একাধিক ঈদ জামাত হবে।

সকাল সাতটায় রাজশাহী প্রযুক্তি এবং প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে রাজশাহীর প্রথম ঈদ জামাতটি অনুষ্ঠিত হবে। সকাল সোয়া ৮টায় নগরীর টিকাপাড়ায় (মহানগর) ঈদগাহে দ্বিতীয় বৃহত্তম জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া নওদাপাড়া আমচত্বর আহলে হাদীস মাঠে সাড়ে সাতটাসহ সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত নগরীর বিভিন্ন পয়েন্টে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

খুলনা

সকাল ৮টায় খুলনার সার্কিট হাউজ ময়দানে ঈদের প্রধান ও প্রথম জামাত এবং খুলনা টাউন জামে মসজিদে সকাল ৯টায় অনুষ্ঠিত হবে ঈদের দ্বিতীয় জামাত। বৃষ্টি হলে, ঈদের প্রথম ও প্রধান জামাতটি সকাল ৮টায় এবং দ্বিতীয় জামাতটি সকাল সাড়ে ৯টায় টাউন জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে। একই কারণে খুলনা কালেক্টটের জামে মসজিদেও একটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

বরিশাল

বরিশালে স্টিমার ঘাট জামে মসজিদের খতিব মাওলানা সিহাব উদ্দিনের ইমামতিতে হেমায়েত উদ্দিন কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে বরিশালে ঈদুল আজহার প্রধান জামাত হবে সকাল ৮টায়। তবে বরিশাল বিভাগে সবচেয়ে বড় ঈদ জামাত হবে সকাল সাড়ে ৮টায় চরমোনাই দরবার শরীফ ময়দানে। চরমোনাই পীর মাওলানা মুফতি সৈয়দ মোহাম্মাদ রেজাউল করিমের ইমামতিতে ওই জামাতে প্রায় ২০ হাজার মানুষের অংশগ্রহণ করবেন।

রংপুর

রংপুরের কালেক্টরেট ঈদগাহ মাঠে সকাল সাড়ে ৮টায় ঈদুল আজহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে। তবে বৃষ্টি হলে জামাতটি কালেক্টরের মাঠে না হয়ে কোর্ট জামে মসজিদে জামাতটি অনুষ্ঠিত হবে। নগরীর শতাধিক স্থানে অনুষ্ঠিতব্য ঈদের সকল জামাতই সকাল ১০টার মধ্যে শেষ করার জন্য চিঠি দিয়েছে সিটি কর্পোরেশন।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত