(প্রিয়.কম) মিয়ানমার থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় গ্রহণকারী রোহিঙ্গাদের জন্য যুক্তরাষ্ট্র মানবিক সহায়তা হিসেবে আরও ৪৭ মিলিয়ন ডলার দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন মিয়ানমার সফরকালে ১৫ নভেম্বর বুধবার সেদেশের রাজধানী নেপিডোতে এ ঘোষণা দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়।  

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই ঘোষণার পর আগস্ট থেকে শরণার্থী সংকট মোকাবেলায় বাংলাদেশকে দেওয়া যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তার পরিমাণ দাঁড়ালো মোট ৮৩ মিলিয়ন ডলার। 

বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়, ‘টিলারসন বলেন, এই বিপর্যয়ের মানবিক সংকটের মাত্রা ভয়াবহ। ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা যাদের বেশিরভাগই নারী ও শিশু, বাংলাদেশে পালিয়ে গেছে এবং তাদের আরও অজানা সংখ্যক অভ্যন্তরীণভাবে বাস্তুচ্যুত হয়েছেন যাদের খাদ্য, পানি ও আশ্রয়ের অপর্যাপ্ততা রয়েছে।’

‘বিশ্বব্যাপী মানবিক উদ্যাগের জন্য যুক্তরাষ্ট্র সবসময়ই নিবেদিত এবং রোহিঙ্গাদের সাহায্য করার জন্য আমাদের চলমান প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে এই তহবিল বিতরণ করতে পেরে যুক্তরাষ্ট্র গর্বিত’, বলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।  

যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তা বাংলাদেশের মাঠপর্যায়ে কার্যক্রম পরিচালনায় নিয়োজিত আন্তর্জাতিক অংশীদার সংস্থাগুলোর কাছে পৌঁছায়, যার মধ্যে রয়েছে ইন্টারন্যাশনাল অরগ্যানাইজেশন ফর মাইগ্রেশন (আইওএম), ইউএন হাই কমিশনার ফর রিফিউজিস (ইউএনএইচসিআর), ইউএন চিলড্রেনস ফান্ড (ইউনিসেফ) এবং ওয়ার্ল্ড ফুড প্রোগ্রাম (ডব্লিউএফপি)। এ সব সংস্থা মিয়ানমারে রাখাইন রাজ্য থেকে উচ্ছেদ হওয়া ছয় লাখেরও বেশি রোহিঙ্গার সুরক্ষা, জরুরি আশ্রয়, খাদ্য এবং পুষ্টি সহায়তা, স্বাস্থ্য সেবা ও মনস্তাত্বিক এবং সামাজিক সহায়তা প্রদান করছে।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত