(প্রিয়.কম) মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে পাওয়া সব তথ্য মার্কিন সিনেটের সভায় উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটর জেফ মার্কলে।

১৮ নভেম্বর শনিবার কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন ও তথ্য সংগ্রহ শেষে দুপুর ১২টার দিকে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি।

স্থানীয় আইওএম পরিচালিত একটি স্কুলে ব্রিফকালে জেফ মার্কলে বলেন, ‘আমরা রোহিঙ্গা পরিস্থিতি সরেজমিনে দেখেছি এবং তাদের বিভিন্ন লোমহর্ষক নির্যাতনের বর্ণনা শুনেছি। পরবর্তীতে মিয়ানমার সফর করে বিষয়টি সিনেটের বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে।’

এর আগে উখিয়ার বালুখালী রোহিঙ্গা শরণার্থী ক্যাম্প ঘুরে রোহিঙ্গাদের সঙ্গে কথা বলেন যুক্তরাষ্ট্রের ১০ সদস্যের প্রতিনিধিদল। তাদের মধ্যে দুই জন সিনেটর ও তিন জন কংগ্রেসম্যান ছিলেন। এ ছাড়া সঙ্গে ছিলেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট।

মিয়ানমারের সরকারের অত্যাচারে বাধ্য হয়ে পালিয়ে আসার কথা স্বীকার করে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদলকে রোহিঙ্গারা জানান, মিয়ানমার কারাগারে হাজার হাজার নিরীহ রোহিঙ্গা যুবকদের আটকে রেখে নির্যাতন করা হচ্ছে। বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে। তাদের ফসল কেটে নেওয়া হচ্ছে। হত্যা করা হচ্ছে রোহিঙ্গাদের। সেনাবাহিনীর সদস্যরা সীমান্তের জিরো পয়েন্টে মাটির নিচে পুঁতে রেখেছে প্রচুর স্থলমাইন। এতে প্রায় দুর্ঘটনা ঘটছে।

মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতনের বর্ণনা দিয়ে তারা ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি জানান। সেসময়ে তারা জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

রোহিঙ্গারা চলমান সহিংসতা বন্ধ করে রাখাইন রাজ্যে শান্তি প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণের জন্য প্রতিনিধিদলের কাছে অনুরোধ জানান। 

প্রিয় সংবাদ/শান্ত