(প্রিয়.কম) সুপ্রিয় পাঠকেরা, প্রিয় লাইফে আপনাদের স্বাগতম। আপনাদের জীবনকে আরও একটু সহজ করতে, নানান রকম পণ্য ও সেবার রিভিউ ও খোঁজ-খবর তুলে ধরতে এখন থেকে আমাদের নিয়মিত আয়োজন থাকবে  "প্রিয় রিভিউ"। আমাদের আজকের রিভিউ অন্যরকম এক চটপটি নিয়ে। একজন খাদ্যপ্রেমীর দৃষ্টিকোণ থেকে খাবারটির ভালো-মন্দ তুলে ধরার চেষ্টা রইলো। রিভিউটি সংগ্রহ করা হয়েছে প্রকৌশলী অনুপম হোসেন পুর্ণমের থেকে।

চটপটি পছন্দ করেন না বা জীবনে একবারও খেয়ে দেখেননি এমন মানুষ খুবই কম পাওয়া যাবে এই দেশে। শহরে-গ্রামে অলিতে গলিতে চটপটি ফুচকার দোকান দেখা যায় অহরহই। কিন্তু সে তো সাধারণ আলু-ডাবলি-ডিমের চটপটি। বরিশালের এই চটপটি একেবারেই আলাদা, কারণ তাতে দেওয়া হয় মুরগীর মাংস!

এই চটপটি পাওয়া যাবে বরিশাল শহর, নতুন বাজার পুলিশ ফাঁড়ির উল্টো পাশে। দোকানের নাম দুলালের চটপটি। এতই জনপ্রিয় এই খাবারটি যে প্রচুর ভীড় থাকে। রীতিমত লাইন দিয়ে চটপটির অর্ডার দিতে হয়। 

অনুপম হোসেন পুর্ণম জানান, অফিসের কাজে সে শহরে গিয়ে একটু অবসর পেয়ে বিকেলে তিনি ও তার সহকর্মীরা খেতে যান এই চটপটি। সাড়া দেশে আমরা চটপটিতে ডিম এমনই খাই, কিন্তু এখানে চটপটিতে ডিম দেবার জন্য আলাদা করে বলতে হয়। মুরগীর মাংস দেওয়া চটপটি এখানে মাত্র ২০ টাকা প্রতি প্লেট! ডিম আর মুরগীর মাংস দুটোই খেতে চাইলে গুনতে হবে মাত্র ৩০ টাকা। স্বাদটা খুবই ভালো বলে জানান তিনি। যারা ঝাল পছন্দ করেন, তাদেরও ভালো লাগবে কারণ এতে দেওয়া হয় টাটকা বোম্বাই মরিচ। 

চটপটিপ্রেমীদের নিশ্চয়ই এতক্ষণে বোঝা হয়ে গেছে এই চিকেন চটপটির বিশেষত্ব। বরিশাল শহরে গেলে ঢুঁ মেরে দেখবেন অবশ্যই এই বিখ্যাত চটপটি আসলে কেমন। এই ছিলো আজকের রিভিউ। এখানে খাওয়ার অভিজ্ঞতা যদি আপনারও থেকে থাকে, তাহলে নিচে কমেন্ট আকারে আমাদের লিখে জানান। সেরা কমেন্টগুলো আমরা গ্রাহকের কমেন্ট হিসাবে যোগ করে দেব আমাদের এই ফিচারের সাথে!

সম্পাদনা: রুমানা বৈশাখী