(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে চলমান সেনা অভিযানের প্রেক্ষিতে ৬ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে বাংলাদেশের কক্সবাজার জেলার টেকনাফ ও উখিয়ার শরণার্থী শিবিরগুলোতে আশ্রয় নিয়েছে। 

এ সব রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবিরে মাত্রাতিরিক্ত ঘনবসতির পাশাপাশি অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারণে মশাবাহিত রোগ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

একদিকে যেমন রোহিঙ্গারা মশারি ব্যবহারে সচেতন নয়, অন্যদিকে শরণার্থী শিবিরগুলোতে ড্রেনেজ সিস্টেম ও পূর্ণাঙ্গ স্যানিটেশন ব্যবস্থা গড়ে উঠেনি। তাই ঝুঁকির মাত্রাও তুলনামূলক বেশি। 

এ অবস্থায় রোহিঙ্গাদের মাঝে তিন লাখ মশারি বিতরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আর মশা বিস্তারের স্থানগুলোতে ওষুধ ছিটানোর নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে।

এর আগে সংক্রামক রোগ প্রতিরোধে রোহিঙ্গাদের হাম-রুবেলার এক লাখ ৩৫ হাজার ৫১৯ ডোজ, ওরাল পোলিও ১২ হাজার ৩৩৪ ডোজ ও ভিটামিন-এ ১২ হাজার ৬৪ ডোজ টিকা দেয়া হয়। এছাড়া কলেরা প্রতিরোধে রোহিঙ্গাদের টিকা খাওয়ানো হয়েছে।

প্রিয় সংবাদ/আশরাফ