(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের রাখাইনে সেনাবাহিনী ও উগ্রপন্থী বৌদ্ধদের হামলা ও নির্যাতন থেকে বাঁচতে প্লাস্টিক ও বাঁশ দিয়ে তৈরি ভেলায় ভেসে নাফ নদী পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে পৌঁছেছেন ৫২ রোহিঙ্গা।

৮ নভেম্বর বুধবার সকাল ৯টার দিকে ২২ শিশু, ১৭ জন নারী এবং ১৩ জন পুরুষ নিয়ে ভেলাটি কক্সবাজারের টেকনাফে শাহপরীর দ্বীপে পৌঁছায়। পরে তাদের উদ্ধার করে বিজিবি হেফাজতে রাখা হয়েছে। 

ভেলায় করে ভেসে আসা এক রোহিঙ্গা নুরুল কবির জানান, নৌকা না পেয়ে চার দিন ধরে চেষ্টা করে প্লাস্টিক ও বাঁশ বেঁধে ওই ভেলা তৈরি করেন তারা। সবাইকে ভেলায় তোলার পর মংডু শহরের দংখালি গ্রাম থেকে ৭ নভেম্বর মঙ্গলবার রাত ৩টার দিকে তারা বাংলাদেশের দিকে রওনা হন।

নুরুল কবির বলেন, রাখাইনে সেনাবাহিনী ও উগ্রপন্থি বৌদ্ধদের অত্যাচার এখনও চলছে। এখনও রোহিঙ্গাদের বাড়িঘর জ্বালিয়ে দেওয়া হচ্ছে।

সহিংসতা শুরুর পর বহু রোহিঙ্গা প্রাণ নিয়ে বাংলাদেশে পৌঁছাতে পারলেও এখনও কিছু গ্রামে বহু রোহিঙ্গা আটকা পড়ে আছেন বলেও জানান তিনি।

নুরুল বলেন, মিয়ানমার থেকে পালানোর চেষ্টায় মংডু এসে অনেকেই নৌকার সংকটে পড়ছেন। এ কারণে তাদের মতো অনেকেই ভেলা বানানোর চেষ্টা করছেন।

বিজিবি-২-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এস এম আরিফুল ইসলাম জানান, মানবিক সহায়তা দিয়ে আপাতত তাদের এক জায়গায় জড়ো করে রাখা হয়েছে। তাদের সঙ্গে ইয়াবা, অস্ত্র ও অবৈধ পণ্য আছে কিনা তল্লাশি করার পর তাদের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাঠানো হবে।

প্রসঙ্গত, ২৫ আগস্ট মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গা নিধন অভিযান শুরুর পর প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের সংখ্যা ৬ লাখ ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে জাতিসংঘ। তবে বেসরকারি হিসেবে এ সংখ্যা সাড়ে ৭ লাখেরও বেশি। রোহিঙ্গাদের পালিয়ে আসার এ ধারা অব্যাহত থাকলে শরণার্থীর সংখ্যা ১০ লাখে পৌঁছাতে পারে বলে সতর্ক করে জাতিসংঘ।  

প্রিয় সংবাদ/শান্ত