(প্রিয়.কম) কফি উৎপাদনে ভারতের স্থান এশিয়ায় তৃতীয়। এছাড়া কফি রফতানিতেও তারা এশিয়ার অনেক দেশের চেয়ে এগিয়ে। যদিও এবার ভারতেই তৈরি হতে চলেছে বিশ্বের সবচেয়ে দামি কফি। তবে এই কফি কী পদ্ধতিতে তৈরি হচ্ছে তা জানতে পারলে হয়তো অনেকেই এই কফি খেতে চাইবেন না। বিশ্বের সবচেয়ে দামি এই কফি তৈরি হয় গন্ধগোকুল নামক বিড়াল-জাতীয় একপ্রকার প্রাণীর বিষ্ঠা থেকে। এই কফি লুয়ার্ক কফি নামে পরিচিত।

ভারতের কর্ণাটকের কুর্গে ‘কুর্গ কনসোলিডেটেড কমোডিটিস’ নামে স্টার্ট-আপ ফার্ম তৈরি করে এই লাক্সারি কফি বানানো চলছে। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম বিজনেস লাইন এমন তথ্য জানিয়েছে।

বিড়ালগুলোকে কফির বীজগুলো খেতে দেওয়া হয়। এ প্রাণীগুলো ভালো জাতের বীজগুলো চিনতে পারে এবং বেছে বেছে সবচেয়ে ভালো বীজগুলো খায়। তবে তাদের পেটে কফির বীজগুলো সম্পূর্ণ হজম হয় না। কিছুটা হজম হয় এবং কিছুটা আস্তই রয়ে যায়। এরপর যখন বীজগুলো বিষ্ঠা আকারে বের হয়ে আসে তখন সেগুলো সংগ্রহ করে নেওয়া হয়। সেগুলো পরিষ্কার করে বীজগুলো থেকে তৈরি করা হয় বিশ্বের সবচেয়ে দামি কফি! 

এই কফির পুষ্টিগুণ অন্যান্য কফির চেয়ে অনেক বেশি বলে দাবি করা হয়েছে। পাশাপাশি এই কফি তৈরির পদ্ধতি সব থেকে আলাদা। তাই এটি তৈরিতে খরচও অনেক বেশি হয়। এই লুয়ার্ক কফির মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের দেশে সবচেয়ে বেশি চল রয়েছে। প্রতি কেজির দাম আসে ২৫ থেকে ৩০ হাজার টাকা।

জানা গেছে, গন্ধগোকুল নামক বিড়ালের পেটে গিয়ে স্বাভাবিক এনজাইম এই কফির স্বাদ ও গুনমান বাড়িয়ে তোলে। যার ফলে এই বিনস থেকে তৈরি কফি স্বাদে, পুষ্টিতে অনন্য হয়ে ওঠে!

প্রিয় বিজনেস/আশরাফ