(প্রিয়.কম) ষাট দশকের অন্যতম কবি বেলাল চৌধুরীর শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতি হয়েছে। তিনি এখন অনেকটাই শঙ্কামুক্ত বলে জানানো হয়েছে তার পরিবারের পক্ষ থেকে। এদিকে বেলাল চৌধুরীর চিকিৎসার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে গত রোববার ডা. ফিরোজ আহমেদ কোরেশীর নেতৃত্বে একটি মেডিকেল বোর্ড গঠন করা হয়। কিডনি, উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিসসহ নানা রোগে আক্রান্ত এই কবিকে হাসপাতালে ভর্তি করার পর তার মূত্রনালিতে ইনফেকশনজনিত রোগ- সেফটিসেমিয়াশনাক্ত হয় এবং পাকস্থলীতেও সমস্যা দেখা দেয়।

ষাটের অন্যতম এই কবির বর্তমান শারীরিক অবস্থা জানতে প্রিয়.কমের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করা হয় তার পুত্র আবদুল্লাহ প্রতীক চৌধুরীর সঙ্গে। তিনি জানান- ‘ইনফেকশনটা একটু বেড়েছে। ডাক্তারদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ইনফেকশন কমাতে তাকে এন্টিবায়োটিক দেওয়া হচ্ছে। ইনফেকশনের বর্তমান অবস্থা বোঝার জন্য আরো বেশ কিছু টেস্ট দেওয়া হয়েছে, মূলত টেস্টগুলো করার পরই তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে আমরা পরিষ্কার ধারণা পাবো’।

বেলাল চৌধুরী

কবির হঠাৎ কথা বন্ধ হয়ে যাওয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে কবিপুত্র জানান- তিনি এখন অল্প অল্প কথা বলতে পারছেন, কেউ ডাকলে রেসপন্স করছেন এবং স্বাভাবিকভাবেই খাওয়া-দাওয়া করতে পারছেন।

উল্লেখ্য, গত ২৩ আগস্ট গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে, বেলাল চৌধুরীকে তার পরিবারের সদস্যরা রাজধানীর আনোয়ার খান মর্ডান হাসপাতালে ভর্তি করানওই সময় তিনি কারোর সাথে কথা বলতে পারছিলেন না, এমনকি কাউকে চিনতেও পারছিলেন না ঠিক মতো।

ষাট দশকের অন্যতম শক্তিশালী এই কবি দীর্ঘদিন বাংলাদেশের ভারতীয় হাই কমিশন থেকে প্রকাশিত ভারত বিচিত্রার সম্পাদক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এছাড়া দীর্ঘদিন তিনি কলকাতায় বসবাসকালে সুনীল গঙ্গোপাধ্যায় সম্পাদিত সাহিত্য পত্রিকা কৃত্তিবাসএ কাজ করছেন।

প্রিয় সাহিত্য/শামীমা সীমা