(প্রিয়.কম) মিয়ানমার সফর শেষে দেশে ফিরে রোহিঙ্গা সঙ্কট সমাধানে ইয়াঙ্গুনের ‘সদিচ্ছার’ অপেক্ষায় আছেন বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।

২৫ অক্টোবর বুধবার সন্ধ্যায় মিয়ানমার থেকে ফিরে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার পর সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এ কথা জানান মন্ত্রী।

পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার দাবি নিয়ে মিয়ানমার সফরে গিয়েছিলেন আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। সংকট সমাধানে ইয়াঙ্গুনে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে আলোচনার পাশাপাশি স্টেট কাউন্সিলর নোবেলজয়ী নেত্রী অং সান সুচির সঙ্গেও সাক্ষাতে মিলিত হন তিনি।

বিমানবন্দরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘সফরে আমরা আমাদের দাবি উপস্থাপন করেছি। আশা করছি, সব কিছু হবে। দেখা যাক, আমরা অপেক্ষা করছি তাদের (মিয়ানমার সরকার) সদিচ্ছার ওপর।’

মিয়ানমার সফরে স্টেট কাউন্সিলর সু চি’র সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ছবি: ফোকাস বাংলা

মিয়ানমার সফরে স্টেট কাউন্সিলর সুচি’র সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাত করেন বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। ছবি: ফোকাস বাংলা

এর আগে বাংলাদেশে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের ফিরিয়ে নিতে মিয়ানমার সরকার কাজ শুরু করেছে। কফি আনান কমিশনের সুপারিশ বাস্তবায়নেও তার সরকার কাজ করছে বলে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে জানিয়েছিলেন দেশটির স্টেট কাউন্সিলর সুচি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘নতুন আসা ৬ লাখ এবং পুরানো ৪ লাখ রোহিঙ্গা ফিরিয়ে নিতে একটি ‘যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ’ গঠনে দুই দেশের মধ্যে মতৈক্য হয়েছে। আশা করছি, ৩০ নভেম্বরের মধ্যে ‘যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ’ গঠিত হবে।’

এ বিষয়ে মিয়ানমারই কর্মপরিক্রমা ঠিক করবে অভিহিত করে তিনি বলেন, ‘তারাই (মিয়ানমার সরকার) নির্ধারণ করবে কীভাবে কী হবে?’

উল্লেখ্য, মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্যাতনের মুখে গত ২৪ আগস্টের পর থেকে রাখাইন রাজ্য ছেড়ে ৬ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে এসেছে। আগে থেকেই আরও ৪ লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে এসে বাংলাদেশে বসবাস করছে।

প্রিয় সংবাদ/শান্ত