(প্রিয়.কম) বিতর্কিত তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) আইনের ৫৭ ধারায় এবার মামলার শিকার হলেন ‘প্রিয়.কম’ এবং 'ডেইলি অবজারভার'-এর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি সীমান্ত খোকন।

১ আগস্ট মঙ্গলবার রাতে জেলার নবীনগর থানায় মামলাটি দায়ের করা হয়।

মামলা করেছেন উপজেলার বীরগাঁও ইউনিয়নের কিশোরপুর গ্রামের মাসুদ মিয়া। যার স্ত্রী ও মেয়ে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন বলে ফেসবুকে লিখেছিলেন খোকন।

তবে থানায় কোনো মামলা করেননি বলে প্রিয়.কমকে জানিয়েছেন মাসুদ মিয়া।

এদিকে মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, গত ২৪ জুলাই দুপুরে নবীনগরের কিশোরপুর গ্রামের বাসিন্দা মাসুদ মিয়ার স্ত্রী ও তার শিশুকন্যা রোদে কম্বল শুকানোর জন্য বাড়ির উঠানে গেলে তার (মাসুদ মিয়ার) ভাই দিদার মিয়া ও তার স্ত্রীর সঙ্গে ঝগড়া ও মারধরের ঘটনায় মাসুদ মিয়ার স্ত্রী ও শিশুকন্যা আহত হয়। ঘটনায় ২৫ জুলাই সাংবাদিক সীমান্ত খোকন তার ব্যক্তিগত ফেসবুক আইডিতে একটি স্ট্যাটাস পোস্ট করেন। ওই পোস্টে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন তথ্য দিয়ে বলা হয়, আপন চাচা কর্তৃক তার ভাতিজিকে ধর্ষণ ও পরবর্তীতে মা-মেয়ে গৃহবন্দী অবস্থায় মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন এবং পুলিশকে জানালেও কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো বিষয়টিকে ধামাচাপা দেয় বলে উল্লেখ করা হয়েছে।

ঘটনার বিষয়ে নবীনগর থানার ওসি আসলাম সিকদার জানান, ফেসবুকে লেখালেখির কারণে মাসুদ পরিবারের সম্মানহানি হয়েছে অভিযোগ করে ১ আগস্ট থানায় মামলা করেছেন।

মামলার বিষয়ে সীমান্ত খোকন প্রিয়.কমকে বলেন,  ‘নির্যাতনের শিকার একজনকে উদ্ধারে আমি নবীনগর থানার ওসিকে ফোন দিলে তিনি যেতে পারবেন না বলে জানান। পরে ফেসবুকে এ নিয়ে লিখলে পুলিশ ঘটনাস্থলে যায় এবং ফিরে এসে আমাকে ৫৭ ধারায় মামলার ভয় দেখায়। এটা আমি কয়েকদিন আগেই ফেসবুকে লিখেছিলাম।’