(প্রিয়.কম) সাভারের আশুলিয়ায় মারধরের অপমান সইতে না পেরে লিটন রাজ (৩৫) নামে এক ট্রাক চালকের আত্মহত্যার অভিযোগ পাওয়া গেছে। নিহতের মরদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

১৩ বৃহস্পতি বুধবার দিবাগত রাতে আশুলিয়ার পাথালিয়া ইউনিয়নের নয়ারহাট কুলুপাড়া এলাকার নিজ বাড়ি থেকে লিটনের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

এলাকাবাসী জানায়, বুধবার সকালে ব্যাংক থেকে ঋণের টাকা তোলা নিয়ে লিটন রাজ ও তার স্ত্রী কুলু রানীর মধ্যে ঝগড়া হয়। এসময় লিটন রাজ তার স্ত্রীকে মারধর করে। স্ত্রীর চিৎকারে প্রতিবেশী পাথালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের ২ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ফরিদ মিয়া ও তার লোকজন ঘটনাস্থলে এসে লিটন রাজকে মারধর করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। পরে লিটনের নিজ বাড়ির একটি কক্ষে আড়ার সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় তার মরদেহ দেখতে পায় স্বজনরা। পরে উদ্ধার করে স্থানীয় গণস্বাস্থ্য হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পরিবারের সদস্যরা তার ঝুলন্ত লাশ দেখে আশুলিয়া থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তার লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে আশুলিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল আউয়াল। তিনি জানান, মরদেহের শরীরে আঘাতের চিহৃ ছিল। প্রাথমিকভাবে ধারনা করা হচ্ছে মারধরের অপমান সইতে না পেরে লিটন আত্মহত্যা করে থাকতে পারে। তবে ময়না তদন্তের পরে নিশ্চিত হওয়া যাবে এটি হত্যা না আত্মহত্যা। সেই অনুযায়ী আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

প্রিয় সংবাদ/কামরুল