(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের নাফ নদী পার হয়ে জীবন বাঁচাতে প্রতিদিন দলে দলে বাংলাদেশে প্রবেশ করছেন নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গারা। বেশির ভাগ রোহিঙ্গা দেশের উখিয়া সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছেন। এসময় তারা নিজেদের সঙ্গে যা পেয়েছেন তাই নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছেন।

এদিকে বাংলাদেশে প্রবেশ করে খাবারের জন্য অর্থ সংকটে ভুগছেন তারা। এজন্য নিজেদের সঙ্গে নিয়ে আসা গবাদি পশু পানির দামে বিক্রি করছেন তারা। 

জানা যায়, উখিয়ার ঘুমদাম বাজারে ১০ হাজার থেকে ১৫ হাজার টাকায় গরু বিক্রি করে দিচ্ছেন দেশে আশ্রয়ের উদ্দেশ্যে আসা রোহিঙ্গারা। 

মোয়াজ্জেম হোসেন নামে একজন জানান, তিনি তার সাতটি গরু মাত্র ৮ হাজার টাকায় বিক্রি করে দিয়েছেন। 

কারণ হিসেবে জানা যায়, স্থানীয় কিছু ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে সেখানে তৈরি হয়েছে একটি বড় সিন্ডিকেট। ফলে রোহিঙ্গারা গবাদি পশুর দাম হাঁকালেও সেই দামে কিনছে না কেউ। স্থানীয় ব্যবসায়ীরা বলছেন রোহিঙ্গাদের সঙ্গে আসা গবাদি পশুগুলো রোগা। যদি এগুলো এখনি বিক্রি করে না দেয়া হয় তবে এগুলো মারা যাবে। ফলে বাধ্য হয়েই পানির দামে গবাদি পশু বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন রোহিঙ্গারা।

শামসুল আলম নামে অপর এক রোহিঙ্গা জানিয়েছেন, তার গরুগুলো স্বাস্থ্যবান এবং বড়। কিন্তু তারপরেও প্রতি গরুর জন্য তিনি ৭ থেকে ৮ হাজার টাকা মূল্য পেয়েছেন।

তাদের দেয়া তথ্য অনুযায়ী, টানা কয়েকদিন হাঁটার পর তারা নাফ নদীর কাছে এসে পৌছান। এরপর নাফ নদী পাড় হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে তাদের গুণতে হচ্ছে ৭ হাজার টাকা। এরপর বাংলাদেশে প্রবেশ করে ভুগতে হচ্ছে অর্থ ও খাবার সংকটে। ফলে তারা তাদের সঙ্গে নিয়ে আসা গবাদিপশু বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন।  

 সূত্র:  ডেইলি স্টার

প্রিয় সংবাদ/মিজান