(প্রিয়.কম) মিয়ানমারের রাখাইনে সেনাবাহিনী ও উগ্রপন্থী বৌদ্ধদের হামলা ও নির্যাতন থেকে বাঁচতে বাঁশ, প্লাস্টিক ও তেলের জেরিক্যান দিয়ে তৈরি ভেলায় ভেসে নাফ নদী পাড়ি দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন আরও ১৩০ জন রোহিঙ্গা। 

০৯ নভেম্বর বৃহস্পতিবার দুপুর ও বিকেলে কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার শাহ পরীর দ্বীপের জালিয়াপাড়া ও জেটিঘাট পয়েন্ট দিয়ে পৃথক দুইটি ভেলায় বাংলাদেশে প্রবেশ করেছেন তারা।

বিজিবির টেকনাফ-২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল এস এম আরিফুল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার ভেলায় ভেসে বাংলাদেশে আসা ১৩০ রোহিঙ্গার মধ্যে ৬১ জন শিশু, ৪০ জন নারী এবং ২৯ জন পুরুষ রয়েছেন।

ভেলায় আসা এক রোহিঙ্গার বরাত দিয়ে বিজিবির এই কর্মকর্তা আরও জানান, নৌকা সংকটের কারণেই নিজেরা ভেলা বানিয়ে নাফ নদী পাড়ি দিয়ে পালিয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গারা দীর্ঘ ৬ থেকে ৭ ঘণ্টা দাঁড় টেনে এপাড়ে কূলে উঠতে সক্ষম হয়েছেন।

এর আগে গত ৮ নভেম্বর বুধবার সকাল ৯টার দিকে ৫২ জন রোহিঙ্গা নিয়ে প্লাস্টিক ও বাঁশ দিয়ে তৈরী একটি ভেলা কক্সবাজারের টেকনাফে শাহপরীর দ্বীপে পৌঁছায়। তাদের মধ্যে ২২ শিশু, ১৭ জন নারী এবং ১৩ জন পুরুষ।

ওই ভেলায় করে আসা এক রোহিঙ্গা নুরুল কবির জানান, নৌকা না পেয়ে চার দিন ধরে চেষ্টা করে প্লাস্টিক ও বাঁশ বেঁধে ওই ভেলা তৈরি করেন তারা। এর পর বাংলাদেশের দিকে রওনা হন।

প্রিয় সংবাদ/শিরিন