(প্রিয়.কম) বাংলাদেশে পালিয়ে আসা মিয়ানমারের নাগরিকদের কক্সবাজার সিভিল সার্জনের নেতৃত্বে ১০৬টি মেডিকেল টিম ক্যাম্পগুলোতে এ পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ৪ লাখ মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেছে। 

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেন, ‘অসহায় রোহিঙ্গাদের প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা দিতে আমাদের মন্ত্রণালয়ের অধীনে ৩২টি এবং আমাদের দাতা সংস্থাগুলোর সঙ্গে যৌথভাবে আরো ৭৪টি মেডিকেল টিম রয়েছে।’  

এ ছাড়া নতুন করে আসা রোহিঙ্গা এবং স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে ডায়রিয়া রোগ থেকে বাঁচাতে কলেরার টিকাদান কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে বলেও জানান তিনি। 

রোহিঙ্গাদের জন্মনিরোধক সরঞ্জাম সরবারাহের পাশাপাশি সংক্রামক যৌনরোগের প্রাদুর্ভাব রোধকল্পে কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এরইমধ্যে রোহিঙ্গাদের মাঝে সংক্রামক যৌনরোগ ও জন্মনিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি সম্পর্কে সচেতনতা সৃষ্টি করতে বেশ কয়েকটি মেডিকেল টিম নিয়োজিত করেছি এবং তাদের জন্মনিয়ন্ত্রণ সরঞ্জাম সরবরাহ করেছি।’ 

তিনি বলেন, এ ছাড়া সরকারের রোগ পর্যবেক্ষণ সংস্থা রোগতত্ত্ব , রোগ নিরাময় ও গবেষনা কেন্দ্র (আইইডিসিআর) তাদের মাঝে হাম ও পোলিওর টিকা এবং ভিটামিন বিতরণ করেছে।

কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ডা. মো. আবদুল সালাম বলেন, মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা সাধারণত ডায়রিয়া, গলার ইনফেকশন, নিউমোনিয়া, চর্মরোগে এবং দূষিত পানি পান করার কারণে জ্বরের সমস্যায় ভুগেছে।

তিনি জানান, গর্ভবতী নারী ও উচ্চ রক্তচাপ, ডায়াবেটিস এবং অন্যান্য দীর্ঘ মেয়াদি রোগে ভুগছে এমন লোকদের জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

প্রসঙ্গত, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) হিসেব অনুযায়ী গত ৪ নভেম্বর পর্যন্ত ৮ লাখ ২০ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে। 

প্রিয় সংবাদ/নোমান